ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079

প্রশ্নঃ বাংলাদেশে সঞ্চয় বৃদ্ধির উপায়সমূহ আলোচনা কর ।

[ad_1]

প্রশ্নঃ বাংলাদেশে সঞ্চয় বৃদ্ধির উপায়সমূহ আলোচনা কর ।

উত্তরা ভূমিকা : সঞ্চয় বা সঞ্চয়প্রবণতা সাধারণত আয়ের উপর নির্ভর করে । তবে আয় ছাড়াও ব্যক্তিগত , পারিবারিক , সামাজিক ও মনস্তাত্ত্বিক অনেক উপাদান সঞ্চয় বৃদ্ধিতে সহায়তা করে ।

বাংলাদেশে সঞ্চয় বৃদ্ধির উপায় : নিম্নে বাংলাদেশে সঞ্চয় বৃদ্ধির উপায়গুলো আলোচনা করা হলো :

১. আয় বৃদ্ধি : আয় থেকে ভোগ ব্যয় বাদ দিলে সঞ্চয় পাওয়া যায় । কাজেই আয় বৃদ্ধি সঞ্চয় বৃদ্ধিকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করে । আয় বেশি হলে সঞ্চয় বৃদ্ধি পাবে বৃদ্ধি হ্রাস পাবে । সুতরাং বাংলাদেশের জনগণের আয় বাড়লে সঞ্চয় , বাড়বে ।

২. সঞ্চয়প্রবণতা বা সঞ্চয়ের ইচ্ছা বৃদ্ধি : মানুষের সঞ্চয়প্রবণতা তথা সঞ্চয়ের ইচ্ছা বৃদ্ধি পেলে সঞ্চয় বৃদ্ধি পায় । সঞ্চয়ের ইচ্ছা কম হলে আয় বেশি হলেও সঞ্চয় বৃদ্ধি পায় না । আবার সঞ্চয়ের ইচ্ছা প্রবল হলে আয় কম হলেও সঞ্চয় বৃদ্ধি পায় । Target saver এর বেলায় সঞ্চয় বৃদ্ধি পায় এবং Residue saver এর বেলায় সঞ্চয় বৃদ্ধি কম হয় ।

৩. দাম স্তর হ্রাস : দাম স্তর হ্রাস সঞ্চয়কে প্রভাবিত করে । দাম স্তর বেশি হলে আয়ের সিংহভাগ দৈনন্দিন ব্যয় মিটাতে ব্যয় হয় । এ অবস্থায় সঞ্চয় বৃদ্ধি হ্রাস পায় । পক্ষান্তরে , দাম স্তর হ্রাস পেলে জীবনধারণের ব্যয় কমে এবং সঞ্চয় বৃদ্ধি পায় । বাংলাদেশে দ্রব্যের দামের ঊর্ধ্বগতি সঞ্চয়কে প্রভাবিত করে । সুতরাং দাম স্তরকে স্থিতিশীল বা সহনীয় পর্যায়ে রাখলে সঞ্চয় বাড়বে ।

৪. সুদের হার বৃদ্ধি : সুদের হার প্রত্যক্ষভাবে সঞ্চয়কে প্রভাবিত করে । সুদের হার বেশি হলে / বাড়লে অধিক আয়ের আশায় মানুষ বেশি সঞ্চয় করে । আবার সুদের হার হ্রাস পেলে / কমলে মানুষ সঞ্চয়ের পরিমাণ কমিয়ে দেয় ।

৫. প্রত্যাশা হ্রাস : ভবিষ্যতে আয় বাড়তে পারে এমন প্রত্যাশা থাকলে বর্তমানে সঞ্চয় কম হয় । আবার , ভবিষ্যতে আয় প্রাপ্তি কমে যেতে পারে এমন প্রত্যাশা থাকলে বর্তমানে সঞ্চয় বাড়ে । কাজেই প্রত্যাশা মানুষের সঞ্চয়কে প্রভাবিত করে ।

৬. অভ্যাস ও রুচির পরিবর্তন : উন্নত ভোগ , অভ্যাস ও রুচিবোধ মানুষের সঞ্চয়কে প্রভাবিত করে । কারণ উন্নত ভোগ , অভ্যাস ও রুচি থাকলে ভোগ ব্যয় বেশি হয় এবং সঞ্চয় কম হয় । পক্ষান্তরে , অনুন্নত রুচিবোধ থাকলে কিংবা উন্নত ভোগের সাথে মানুষের পরিচয় না থাকলে ভোগ কম হয় এবং সঞ্চয় বেশি হয় ।

৭. ব্যাংক ব্যবস্থা উন্নীতকরণ : আধুনিক কালে মানুষ সঞ্চয় করে মূলত নগদ অর্থে । নগদ অর্থ নিজের কাজে রাখা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ । তাই সঞ্চিত অর্থ ব্যাংকে রাখা নিরাপদ । ব্যাংক ব্যবস্থা উন্নত হলে মানুষের সঞ্চয়ের পরিমাণ বাড়ে । তাছাড়া ব্যাংকে টাকা জমা রাখা এবং উত্তোলন সংক্রান্ত নিয়মাবলি যত সহজ সরল হবে সঞ্চয়ের পরিমাণ ততই বৃদ্ধি পাবে ।

৮. অনুন্নত সামাজিক নিরাপত্তা : সরকার কর্তৃক প্রদত্ত শিক্ষাভাতা , বেকারভাতা ও বয়স্কভাতা ইত্যাদি সামাজিক নিরাপত্তা না থাকলে মানুষের সঞ্চয়প্রবণতা বেশি হয় ।

উপসংহার : উপর্যুক্ত পন্থা অবলম্বন করে আমরা সঞ্চয় বৃদ্ধি করতে পারি ।

[ad_2]



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!