ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079

স্থানীয় সরকার কাঠামাের প্রকৃতি ও বৈশিষ্ট্য উল্লেখ কর।


অথবা, স্থানীয় সরকার ব্যবস্থার প্রকৃতি ও বৈশিষ্ট্যের স্বরূপ তুলে ধর।
অথবা, স্থানীয় সরকারের প্রকৃতি ও বৈশিষ্ট্য বর্ণনা কর।
অথবা, স্থানীয় সরকারের প্রকৃতি ও বৈশিষ্ট্যের সরূপ ব্যাখ্যা কর।
অথবা, স্থানীয় সরকারের প্রকৃতি ও বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে যা জান লেখ।
ভূমিকা :
বাংলাদেশে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা নতুন কিছু নয়। বিভিন্ন সময়ে এ ক্ষেত্রে বিভিন্ন পরিকল্পনা, পরিবর্তন ও পরিবর্ধন করা হয়েছে। সময়ের পরিবর্তনের ধারায় স্থানীয় সরকার কাঠামােতে নানাবিধ পরিবর্তন সাধিত হয়।
স্থানীয় সরকার কাঠামাের প্রকৃতি ও বৈশিষ্ট্য : স্থানীয় সরকার কাঠামাে কেন্দ্রীয় সরকারের একটি অপরিহার্য অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। স্থানীয় সরকার কাঠামাের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার তার জনকল্যাণে গৃহীত কার্যাবলিকে বাস্তবে রূপায়ন করতে স্থানীয় সরকার কাঠামাের দু’টি স্তরের সুপারিশ করে। জেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদ এই দুই স্তরের। মূল পর্যায়ে পরিপূরক হিসেবে গ্রাম সভার’ (Gram Shava) সুপারিশ করে এ কমিশন। এ ছাড়া কমিশন গ্রামাঞ্চলে ইউনিয়ন পরিষদ এবং জেলা পর্যায়ে জেলা পরিষদকে পুনর্বিন্যাসের জন্য সুপারিশ করেছে। একই সাথে শহরাঞ্চলে থাকবে পৌরসভা এবং নগরীতে থাকবে কর্পোরেশন। স্থানীয় সরকার কাঠামাের প্রতিটি এককের আইনগত স্বতন্ত্র সত্তা থাকবে। তার নিজস্ব ক্ষেত্রে নিজস্ব কর্তৃত্ব ও অধিকার প্রয়ােগ করবে। একে অপরের কাজে হস্তক্ষেপ করা হতে বিরত থাকবে। তাদের মধ্যকার সম্পর্ক হবে পারস্পরিক সহযােগিতা সম্পর্ক। বলাবাহুল্য যে, এ স্থানীয় কাঠামাের কেন্দ্র হবে ইউনিয়ন পরিষদ। ১৯৯৬ সালের ২৩ জুন আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতাসীন হলে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা পর্যালােচনার জন্য একটি কমিটি গঠিত হয়। এই কমিটি ১৯৯৭ সালে স্থানীয় পর্যায়ে চারটি স্তরে স্থানীয় সরকার গঠনের সুপারিশ করে । গ্রাম পর্যায়ে গ্রাম পরিষদ, ইউনিয়নে ইউনিয়ন পরিষদ, থানা পরিষদ এবং জেলা পর্যায়ে জেলা পরিষদ এবং জেলা, থানা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় কর্মকর্তা নির্বাচনের সুপারিশ করা হয়। শুধুমাত্র গ্রাম পর্যায়ে গ্রাম পরিষদের সদস্যদের মনােনয়নের ব্যবস্থা করা হয়। যারা ইউনিয়নের ওয়ার্ড পর্যায়ে নির্বাচিত চেয়ারম্যানের নিয়ন্ত্রণে কাজ করবেন। এখন পর্যন্ত শুধুমাত্র ইউনিয়ন পরিষদ এবং উপজেলা পরিষদের কাঠামাে ও কার্যক্রম নির্ধারিত হয়েছে জাতীয় সংসদে । গ্রাম পরিষদের গঠন বিতর্কিত হওয়ায় এবং বাংলাদেশ হাইকোর্টে সাংবিধানিক বিধি সম্পর্কিত বিষয় নিষ্পত্তি না হওয়ায় বর্তমানে দেশে গ্রামীণ সংস্থাগুলাের মধ্যে বিদ্যমান রয়েছে ইউনিয়ন পরিষদ এবং উপজেলা পরিষদ এবং শহর, নগরের জন্য রয়েছে। মিউনিসিপ্যালিটি এবং কর্পোরশন।
উপসংহার : পরিশেষে বলা যায়, স্থানীয় সরকার সরকারি শাসনের ইউনিট বা অঙ্গ। স্থানীয় সরকার বলতে স্থানীয় পর্যায়ে সরকার ব্যবস্থা অর্থাৎ কর্পোরেশন, পৌরসভা, জেলা, উপজেলা বা থানা, ইউনিয়ন, গ্রাম ও অপরাপর সংস্থার কর্মতৎপরতাকে বুঝায়। কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মকর্তাদের দ্বারা এসব কিছু স্থানীয় সরকারগুলাে দ্বারা পরিচালিত হয়।



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!