ডিগ্রি প্রথম এবং অনার্স দ্বিতীয় বর্ষ ২০২৩ এর সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯

 ডিগ্রী সকল বই

সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ কী?

অথবা, সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ বলতে কী বুঝ?
অথবা, সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ কাকে বলে?
অথবা, সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর।
অথবা, সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ সম্পর্কে তুমি কী জান? সংক্ষেপে লিখ।
অথবা, সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ সম্পর্কে তোমার মতামত তুলে ধর।
উত্তর৷ ভূমিকা :
মার্কসীয় নারীবাদের সমালোচনায় সমাজতান্ত্রিক নারীবাদের উদ্ভব ঘটে। ধনতান্ত্রিক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও সাবেক সমাজতান্ত্রিক সোভিয়েত ইউনিয়ন (বর্তমান রাশিয়া) উভয় রাষ্ট্রেই নারীর বিরুদ্ধে যৌন সহিংসতা ও প্রজনন স্বাধীনতা রাষ্ট্রীয় নীতিনির্ধারণে খুবই নিচু অগ্রগণ্যতা লাভ করেছে। সমাজতান্ত্রিক নারীবাদীরা এ সিদ্ধান্তে পৌঁছান যে, কেবল ধনিকতন্ত্র নারী নির্যাতনের একক কারণ নয়। তাঁদের মতে, ধনিকতন্ত্রের সাথে পিতৃতন্ত্রের ক্রিয়াপ্রতিক্রিয়া নারী নির্যাতনের জন্য দায়ী। পিতৃতান্ত্রিক মতাদর্শ নির্মূল না করলে ধনতান্ত্রিক অর্থনৈতিক সম্পর্ক নির্মূল করা যাবে না। নারীর ভবিতব্য এই যে, তাকে দু’রণাঙ্গনে লড়াই করতে হবে, ধনিকতন্ত্র এবং পিতৃতন্ত্রের বিরুদ্ধে। এছাড়া নির্যাতনের শক্তিগুলো থেকে মুক্তি লাভের অন্য কোনো উপায় নেই।
সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ : মার্কসীয় নারীবাদী প্রবক্তারা নারীনির্যাতনে পুরুষের ভূমিকা সম্পর্কে কিছু বলেননি। বললেও অতি সামান্য বলেছেন। বস্তুত তারা নারী নির্যাতনে পুরুষের ভূমিকা এড়িয়ে গেছেন। তারা ধনিকতন্ত্র নিয়ে এমন জড়িয়ে গেছেন যে, অন্যকিছুই চিন্তা করেননি। সমাজতান্ত্রিক নারীবাদীদের অসন্তুষ্টির আর একটি কারণ, সেক্স সম্পর্কে
মার্কসীয় নারীবাদীদের নীরবতা, মার্কসীয় নারীবাদীরা নারী পুরুষের সম্পর্ককে ‘বুর্জোয়া প্রলেতারিয়া’ শোষণমূলক সম্পর্ক হিসেবে দেখেছেন। এ প্রসঙ্গে Alison M. Jaggar তাঁর ‘Faminist Politics and Human Nature’ গ্রন্থে বলেছেন, “Want to link the Marxist treatment of women’s sex specific oppression Marxism’s main theoretical system, incorporating domination both by class and by gender in the same explanatory framework.” অর্থাৎ, নারীর সেক্স বিষয়ক নির্যাতনের মার্কসীয় ব্যাখ্যাকে মার্কসবাদের প্রধান তাত্ত্বিকব্যবস্থার সাথে
সংযুক্ত এবং শ্রেণি আধিপত্য ও জেন্ডার আধিপত্য উভয়কেই তারা অভিন্ন কাঠামোতে ব্যাখ্যা করতে চান।
উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, সমাজতান্ত্রিক নারীবাদীরা মনে করেন, এমন সংযোগ স্থাপন সম্ভব নয়। কারণ, শোষিত শ্রমিক ও নির্যাতিত নারীর ভোগান্তি এক ধরনের নয়। সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ স্বীকার করে যে, ধনিকতন্ত্রের পতন না হলে নারীর মুক্তি নেই। কিন্তু সমাজতান্ত্রিক নারীবাদী প্রবক্তারা দাবি করেন যে, পিতৃতন্ত্র উৎখাত না করলে ধনিকতন্ত্র ধ্বংস হতে পারে না।



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!