ডিগ্রি প্রথম এবং অনার্স দ্বিতীয় বর্ষ ২০২৩ এর সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯

 ডিগ্রী সকল বই

সবর ও আনুগত্য বলতে কী বুঝ?

অথবা, ধৈর্য ও আনুগত্য বলতে কী বুঝ?
অথবা, ধৈর্য ও আনুগত্য কাকে বলে?
অথবা, ধৈর্য ও আনুগত্য বলতে কি বোঝায়?
অথবা, সবর ও আনুগত্যে সংজ্ঞা দাও।
অথবা, সবর ও আনুগত্য সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর।
উত্তর৷। ভূমিকা :
সুফিরা সর্বেশ্বরবাদে বিশ্বাসী। তাদের উদ্দেশ্য মানব আত্মার সর্বোচ্চ আধ্যাত্মিক বিকাশ সাধন এবং নিজ ক্ষুদ্র সত্তার বিলোপ ঘটিয়ে পরম সত্তায় একাত্মতা স্থাপন। সুফিরা এ উদ্দেশ্যে কিছু মূলনীতির কথা বলেন। এই মূলনীতিগুলোর মধ্যে সবর ও আনুগত্য অন্যতম।
সবর বা ধৈর্য : সবর বলতে বুঝায় প্রসন্ন বদনে দুঃখ যন্ত্রণা বরণ করা, অবৈধ কাজ হতে বিরত থাকা, অদৃষ্টের আঘাত নীরবে সহ্য করা, দারিদ্র্যের মাঝে নিজেকে মানসিকভাবে দৃঢ় রাখা, নিরবে নির্দ্বিধায় বিপদ মেনে নেয়া, আল্লাহর প্রতি আস্থার দৃঢ়তা এবং আল্লাহ কর্তৃক প্রদত্ত বিপদ হাসি মুখে পরম ধৈর্যের সাথে পরিগ্রহণ করাকে সবর করে। সবর দুই প্রকার। যথা : ১. দৈহিক ও ২. আত্মিক। দৈহিক সবর হলো শারীরিক পীড়া সহ্য করা। আর আত্মিক সবর হলো প্রবৃত্তির তাড়নাকে সংযত করা। রাসূল (স) বলেছেন, “ঈমান হলো সবরের নাম।” সবরের তারতম্য ভেদে মানুষকেও তিন ভাগে বিভক্ত করা যায়। যথা : ১. অতি স্বল্প সংখ্যক, যাদের মধ্যে সবর স্থায়ী গুণ হিসেবে অবস্থিত, তারা সিদ্দিকুন এবং মুকারবাবুল নামে অভিহিত। ২. যাদের মধ্যে পাশবিক বৃত্তি অধিক শক্তিশালী, ৩. যাদের দুটি পারস্পরিক বিরোধী বাসনা অনবরত সংগ্রামরত। এ শ্রেণি মুজাহিদুন নামে পরিচিত।
আনুগত্য : আধ্যাত্মিক যাত্রা পথে সুফিসাধক একজন পথনির্দেশক বা পীর বা মুর্শিদের শরণাপন্ন হতে তাগিদ দেন। তিনি পীরের শিষ্যত্ব গ্রহণ করেন এবং তাদের মধ্যে এমন এক সম্পর্ক স্থাপিত হয় যে, শিষ্য পীরের কাছে সম্পূর্ণরূপে নিজেকে আত্মসমর্পণ করেন এবং আনুগত্যে চরম নিষ্ঠা প্রদর্শন করে থাকেন। বিনা দ্বিধায় তিনি পীরের আদেশ নিষেধ পালন করে থাকেন। মুর্শিদের প্রতি এরূপ আনুগত্যের মাধ্যমে আল্লাহর প্রতি আনুগত্যের শিক্ষাকে জাগিয়ে তোলে। এর ফলে সুফিসাধক সাধনার উচ্চমার্গে উঠে নিজের ইচ্ছাকে আল্লাহর ইচ্ছায় বিলীন করে দেন। তখন তার নামাজ, তার এবাদত, তার জীবন মরণ সবই সর্বোচ্চ ক্ষমতার অধিকারী আল্লাহর ইচ্ছায় সমর্পিত হয়।
উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, একজন সুফিসাধক গভীর ধ্যানমগ্ন অবস্থায় আধ্যাত্মিক জ্যোতি লাভ করেন। এ জ্যোতির সাহায্যে তিনি সত্যের অন্তর্নিহিত তাৎপর্য অবলোকন করেন। তিনি আল্লাহর প্রতি ধৈর্য ও আনুগত্য প্রকাশ করেন। সুতরাং সবর ও আনুগত্য হচ্ছে সুফিসাধকের অন্যতম মূলনীতি।



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!