ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ ইংরেজি রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079
Earn bitcoinGet 100$ bitcoin

মূলধন বাজার কী ? বাংলাদেশে মূলধন বাজারের গুরুত্ব আলোচনা কর ।

[ad_1]

👉 মূলধন বাজার কী ? বাংলাদেশে মূলধন বাজারের গুরুত্ব আলোচনা কর ।

উত্তর ৷ ভূমিকা : মূলধন বাজার শব্দটি আধুনিক অর্থনীতিতে একটি বিশেষ পরিচিত শব্দ । প্রত্যেক দেশের অর্থনীতি সেদেশের মূলধন বাজার দ্বারা পরিচালিত হয় । দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার ক্ষেত্রে মূলধন বাজার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে । অনুন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশের অর্থনৈতিক ক্রিয়াকর্ম তথা অর্থনৈতিক উন্নয়ন দ্রুতগতি লাভ করতে না পারার অন্যতম বিশেষ কারণ হলো উন্নত পুঁজি বাজারের অনুপস্থিতি ।

মূলধন বা পুঁজি বাজার: মূলধন বাজার হচ্ছে বস্তুত অর্থনীতি বাজারের একটি উপাদান । অর্থনীতিতে বাজার বলতে যেমন কোন নির্দিষ্ট স্থানকে বুঝায় না , তেমনি মূলধন বাজারও কোন নির্দিষ্ট স্থান নয় । অর্থনীতিতে দীর্ঘমেয়াদি ঋণের লেনদেন যে বাজারে সম্পন্ন হয় সেই বাজারকে মূলধন বাজার নামে অভিহিত করা হয় । বিভিন্ন অর্থনীতিবিদগণ বিভিন্নভাবে মূলধন বাজারের স্বরূপ বর্ণনা করার জন্য এর সংজ্ঞা প্রদান করেছেন । “ মূলধন বাজার বলতে দীর্ঘমেয়াদি ঋণপত্রের মাধ্যমে পুঁজি বিনিয়োগের সাথে সম্পর্কিত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সমষ্টি ।

” ডাডলি জি লাকেটের ভাষায় , “ The capital market encompasses any transaction involving long term debt ….. ” আবার এশিয়া ও দূরপ্রাচ্যের জন্য নিয়োজিত অর্থনৈতিক কমিশন তাদের অভ্যন্তরীণ সঞ্চয় সংগ্রহের রিপোর্টে লিখেছেন যে , “ মূলধন বাজার দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নের সাথে সম্পর্কিত । ” প্রকৃতপক্ষে মূলধন বাজার হলো সেসব প্রতিষ্ঠান ও ব্যবস্থাদির সমন্বয় , যার মাধ্যমে মধ্যমেয়াদি তহবিল এবং দীর্ঘমেয়াদি তহবিল সংগৃহীত হয় এবং প্রয়োজন অনুযায়ী তা ব্যক্তি , ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান ও সরকারকে যোগান দেয়া হয় । সুতরাং ঋণগ্রহীতা ও ঋণদাতার মধ্যে দীর্ঘমেয়াদের জন্য যে বাজারে ঋণের বা মূলধনের আদানপ্রদান হয় তাই মূলধন বাজার মূলধন বাজারকে সাধারণত দুই ভাগে ভাগ করা হয় । যথা :

১. প্রাথমিক মূলধন বাজার ( Primary capital market ) এবং

২. দ্বিতীয় পর্যায়ে মূলধন বাজার ( Secondary capital market ) । ইস্যু করপোরেশন কর্তৃক ইস্যুকৃত নতুন সিকিউরিটির ক্রয়বিক্রয়ের কাজ প্রাথমিক মূলধন বাজারে সম্পন্ন হয় । প্রাথমিকভাবে ক্রীত সিকিউরিটি দ্বিতীয় বারের মতো দ্বিতীয় পর্যায়ের মূলধন বাজারে ক্রয়বিক্রয় হয় । প্রাথমিক মূলধন বাজারের উদাহরণ হচ্ছে ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকিং হাউজ এবং সিকিউরিটির ক্ষেত্রে দ্বিতীয় পর্যায়ের মূলধন বাজার হিসেবে স্টক মার্কেট করপোরেশন কাজ করে থাকে । সাধারণত দীর্ঘমেয়াদি উন্নয়ন কার্যক্রমে মূলধন বাজার ঋণ সরবরাহ করে থাকে । মূলধন বাজারে যেসব প্রতিষ্ঠান বা সংস্থা দীর্ঘমেয়াদি ঋণের যোগান দেয় সেগুলো হচ্ছে – অর্থ করপোরেশন , ইস্যু হাউস , গৃহনির্মাণ ঋণদান সংস্থা , বীমা কোম্পানি , কৃষি ব্যাংক , শিল্প ব্যাংক , স্টক এক্সচেঞ্জ ইত্যাদি । উপর্যুক্ত আলোচনা হতে বলা যায় যে , সংকীর্ণ অর্থে মুদ্রা বা প্রায় মুদ্রা ব্যতীত অপরাপর আর্থিক সম্পদের বাজারকে মূলধন বাজার বলা হয় । এরূপ বাজারে বিভিন্ন ধরনের দীর্ঘমেয়াদি বা ঋণপত্রসমূহ ক্রয় বা বিক্রয় হয় । বিস্তৃত অর্থে মূলধন বাজার একাধিক পৃথক অথচ পারস্পরিকভাবে সংযুক্ত বাজারের সমন্বিত রূপকে বুঝায় । যেমন- স্টক এক্সচেঞ্জ , সরকারি ঋণপত্রের বাজার ইত্যাদির সমন্বয়ে বৃহৎ অর্থে মূলধন বাজার গঠিত বলা যায় ।

বাংলাদেশে মূলধন বাজারের গুরুত্ব বা ভূমিকা : বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে এক সুসংগঠিত মূলধন বাজারের গুরুত্ব নিম্নলিখিত কারণে অপরিসীম ।

১. দেশের অভ্যন্তরীণ সঞ্চয়ের অধিকতর কার্যকরী সঞ্চালন মূলধন বাজার নিশ্চিত করতে পারে ।

২. যেখানে বহুসংখ্যক আর্থিক মধ্যস্থতকারিগণ জড়িত থাকে , সেখানে শিল্পোদ্যোক্তাদের জন্য খুব সহজেই সুসংগঠিত মূলধন বাজার তহবিল সংগ্রহ করতে সহায়তা করতে পারে ।

৩. মূলধন বাজার দেশের আর্থিক সম্পদসমূহ উৎপাদনশীল বিনিয়োগের পথে যুক্তিসংগতভাবে এবং সমতা অনুযায়ী ব্যবহৃত হতে সাহায্য করতে পারে ।

৪. মূলধন বাজার দেশের শিল্প মালিকানার ভিত্তি সম্প্রসারণের ব্যাপারটি নিশ্চিত করতে পারে ।

৫. দেশের শিল্প বিনিয়োগের জন্য দীর্ঘমেয়াদি আর্থিক পরিকল্পনা মূলধন বাজারকে সহায়তা করতে পারে ।

৬. দেশে মুদ্রাস্ফীতি রোধ করতে মূলধন বাজার সহায়তা করতে পারে ।

৭. অর্থনৈতিক উদ্ভূত অসম্পূর্ণতার হাত থেকে অর্থনীতিকে মুক্ত করতে মূলধন বাজার ‘ মার্কেট ফোর্সগুলোর মাধ্যমে সহায়তা করতে পারে ।

উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে বলা যায় যে , বাংলাদেশে বিনিয়োগকারীদের নিজস্ব মূলধন স্বল্প । তাই মূলধন বাজারের মাধ্যমে বিনিয়োগকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ধরনের ঋণপত্র ইস্যু এবং বিক্রয় করে তাদের মূলধন চাহিদার বেশিরভাগ মিটাতে সক্ষম হতে পারে । এক্ষেত্রে বাংলাদেশে অর্থনৈতিক উন্নয়নে মূলধন বাজার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে ।

[ad_2]

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন:01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!