ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079

বাংলাদেশে দারিদ্র্যের কারণ কী কী বর্ণনা দাও।

প্রশ্নঃ বাংলাদেশে দারিদ্র্যের কারণ কী কী বর্ণনা দাও ।

উত্তর ৷ ভূমিকা : বাংলাদেশ একটি দারিদ্র্য প্রধান দেশ । এদেশে বিরাজমান চরম দারিদ্র্যের অবস্থা দীর্ঘদিনের প্রতিকূল আর্থসামাজিক এবং রাজনৈতিক অবস্থার সমন্বিত ফল । বস্তুত এদেশে ভৌগোলিক এবং প্রাকৃতিক অবস্থানের প্রেক্ষিতে দারিদ্র্য সমস্যা জটিল আকার ধারণ করেছে ।

বাংলাদেশে দারিদ্র্যের কারণ : নিম্নে সংক্ষেপে বাংলাদেশের দারিদ্র্যের প্রধান কারণসমূহ সম্পর্কে আলোচনা করা হলো :

১. নিরক্ষরতা : বাংলাদেশে অধিকাংশ লোকই নিরক্ষর । তারা যেমন নিজেদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন নয় , তেমনি সচেতন নয় অধিকার আদায় সম্পর্কে । যার ফলে সমাজের এক ধরনের শোষক শ্রেণী তাদের সর্বদা শোষণ করে যাচ্ছে এবং তাদের অধিকার হতে বঞ্চিত হচ্ছে । তারা নিরক্ষর ও অজ্ঞতার কারণে সমাজে পরিবর্তনশীল পরিবেশের সাথে খাপখাওয়াতে না পেরে কর্মবিমুখ হয়ে বসে আছে এবং দরিদ্রতা ক্রমান্বয়ে সম্প্রসারিত হচ্ছে ।

২ মুদ্রাস্ফীতি : দেশের বাজার ব্যবস্থার উপর সরকারের কোন নিয়ন্ত্রণ না থাকায় এদেশের অনেক মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছে । কারণ এ প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য দিন দিন বেড়েই চলছে । এতে করে সাধারণ মানুষ সীমিত আয়ে সুষ্ঠু জীবনযাপন না করে দারিদ্র্যের শিকার হচ্ছে ।

৩. প্রাকৃতিক দুর্যোগ : বাংলাদেশে অন্যান্য আর্থসামাজিক সমস্যার ন্যায় দারিদ্র্যের অন্যতম প্রধান কারণ হলো প্রাকৃতিক দুর্যোগ । প্রতি বছর এদেশে বন্যা , খরা , জলোচ্ছ্বাস , নদী ভাঙন ও ঘূর্ণিঝড় প্রভৃতি প্রাকৃতিক দুর্যোগগুলো একদিকে যেমন বিপুল সম্পদের ক্ষতিসাধন করছে , অন্যদিকে তেমনি অধিক কর্মসংস্থানের তীব্র অভাব দেখা দিচ্ছে । এর ফলে দারিদ্র্যের প্রসার ঘটে ।

৪. রাজনৈতিক অস্থিরতা : বাংলাদেশের দরিদ্রতার আরেকটি কারণ হচ্ছে রাজনৈতিক অস্থিরতা । কারণ কোন একটি রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার জন্য কোন দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে না । এভাবে দারিদ্র্যের সৃষ্টি হচ্ছে ত এবং

৫. সম্পদের অসম কটন : আমাদের দেশের অধিকাংশ সম্পদ এক শ্রেণীর লোকের হাতে কুক্ষিগত অর্থাৎ শতকরা ২০ ভাগ সম্পদ ৮০ ভাগ লোক এবং শতকরা ৮০ ভাগ সম্পদ ২০ ভাগ লোক ভোগ করছে । সম্পদের এ অসম বন্টনের কারণে আমাদের দেশে দারিদ্র্য উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

৬. বেকারত্ব: বাংলাদেশে দারিদ্র্যর উৎস হলো বেকারত্ব । মূলত এদেশে প্রতিনিয়ত জনসংখ্যা বাড়ছে । কিন্তু সে হারে নতুন কোন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে না , যার ফলে বাড়তি লোকগুলো উপযুক্ত কর্মসংস্থানের অভাবে কর্মবিমূখ |

৭. দুর্নীতি : আমাদের দেশের প্রতিটি ক্ষেত্রে দুর্নীতিতে ভরা । আর এ দুর্নীতির কারণে আজ আমরা অনুন্নত , মস্তি

৮. কৃষির উপর অত্যধিক নির্ভরশীলতা : বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ । এদেশের দারিদ্র্যের অন্যতম কারণ হলো কৃষির উপর অত্যধিক নির্ভরশীলতা । তাছাড়া এদেশের কৃষিক্ষেত্রে চাষাবাদের জন্য অত্যাধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতির পরিবর্তে সনাতন পদ্ধতিতে চাষাবাদ করা হয় । যার ফলে ফসল উৎপাদন অনেকটা কমে যায় এবং এভাবে পরিষ্কের সৃষ্টি হয় ।

৯. কুসংস্কার : কুসংস্কারের প্রভাবেও প্রতি বছর বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ দারিদ্র্যের শিকার কুসংস্কারের বশবর্তী হয়ে তার ভাগ্যকে দোষারোপ করছে । কিন্তু সে তার ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য কোনরকম চেষ্টা করছে না । যার ফলে দারিদ্র্যের সৃষ্টি হচ্ছে ।

১০. দ্রুত সংখ্যা বৃদ্ধি : বর্তমানে বাংলাদেশের জনসংখ্যা ১৬ কোটির অধিক যা হার ১.৪৭ …. জায়গায় বসবাস করে । তাছাড়া এদেশের জনসংখ্যার বৃদ্ধির হার ১.৩৪ % এবং প্রতি বর্গকিলোমিটারে ৯১৪ জন লোক বাস করে , যা অন্যান্য দেশের তুলনায় খুবই বেশি । এর ফলে জনগণ তাদের মৌলিক চাহিদা পূরণ করতে এবং তাদের প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী উৎপাদন করতে সম্পূর্ণ অক্ষম হয়েছে । ফলে এদেশে দারিদ্র্যা আরো ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে ।

উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনা শেষে বলা যায় যে , দারিদ্র্য একটি আপেক্ষিক বিষয় । এটি বিভিন্ন দেশের আর্থসামাজিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে নির্ধারিত হয় । দ্বিতা বাংলাদেশে একটি জটিলতর সামাজিক সমস্যা । সমস্যায় কেবল মানুষের মৌলিক চাহিদা পূর এবং উন্নত জীবনযাপনের সমস্যা হয় তা নয় , বরং এর প্রভাবে ব্যক্তিগত সামাজিক জীবনে নানা ধরনের সমস্যাও দেখা দেয় ।



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!