ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ ইংরেজি রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079
Earn bitcoinGet 100$ bitcoin

প্লেটোর রিপাবলিকের প্রধান বৈশিষ্ট্যসমূহ আলোচনা কর ।

অথবা , প্লেটোর রচিত , ” The Republic ‘ গ্রন্থের সারবস্তু আলোচনা কর ।

অথবা , প্লেটোর ‘ The Republic ‘ গ্রন্থে বর্ণিত দর্শন মূল্যায়ন কর ।

উত্তর ৷৷ ভুমিকা : সমগ্র রিপাবলিক রচনাটি দশটি পুস্তকে বিভক্ত । এ দশটি পুস্তকে প্লেটো কোন নীতি বা তত্ত্বের উপর জ্ঞানগর্ভ আলোচনা করেন নি , বরং তা শিক্ষা , শিল্প , দর্শন , রাষ্ট্রতত্ত্ব , সমাজতত্ত্ব , সাহিত্য , সংস্কৃতি , ন্যায়তত্ত্ব , নৈতিকতা অর্থনীতি জোতির্বিদ্যা প্রভৃতি সকল বিবেকের জ্ঞানভাণ্ডারের পরিপূর্ণ বিশ্লেষণ হচ্ছে রিপাবলিক । মূলত উত্তম জীবন ও উত্তম মানুষকে নিয়েই দি রিপাবলিকের মূল আলোচনা । প্লেটোর কথায় এর অর্থ হচ্ছে , “ উত্তম রাষ্ট্রে মানুষের জীবন এবং তা অর্জনের উপায় নির্দেশ করা ।

দি রিপাবলিক : নিম্নে প্লেটোর রিপাবলিকের মূল বৈশিষ্ট্যগুলো আলোচনা করা হলো :

১. আদর্শ রাষ্ট্র : প্লেটোর ‘ The Republic ‘ এর মূল লক্ষ্য ছিল রাষ্ট্রীয় ঐক্য ও সংহতি । এ রাষ্ট্রীয় সংহতি বজায় রাখার জন্য তিনি এক আদর্শ রাষ্ট্রের পরিকল্পনা করেন । এখানে তিনি গোটা সমাজকে তিন শ্রেণীতে বিভক্ত করেছেন । যথা : ক . দার্শনিক ; খ . যোদ্ধা ও গ . উৎপাদক শ্রেণী । এ তিন শ্রেণীর লোক রাষ্ট্রের বিভিন্ন কাজ সম্পাদন করবে । এখানে কেউ নিজের খেয়ালখুশিমতো কাজ করবে না । রাষ্ট্র নির্দেশিত পথে তাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে । আদর্শ রাষ্ট্র অভিজাত শ্রেণীর স্বার্থে সৃষ্ট । এজন্য বলা হয় , ” Everything for the state , nothing beyond the state ; nothing above the state .

২. দার্শনিক রাজার শাসন : প্লেটোর দার্শনিক রাজার শাসনতত্ত্ব প্রাচীনকাল থেকে শুরু করে অদ্যাবধি বিভিন্নভাবে সমালোচিত হয়েছে । তাঁর এ বক্তব্যের জন্য তিনি অধিকাংশ ক্ষেত্রে কল্পনাবিলাসী হিসেবে আখ্যায়িত হয়েছেন । যাহোক , প্লেটোর যুক্তি হচ্ছে যেহেতু শাসক সর্বোচ্চ জ্ঞানের অধিকারী , তাই কোন আইনের বাধা তার কার্যকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না । শাসক নিজের প্রজ্ঞা অনুযায়ী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন । সেজন্য প্লেটোর দার্শনিক রাজার শাসনকে স্বৈরাচারী বলে আখ্যায়িত করা হয় ।


৩. ‘ দুই সত্য ‘ তত্ত্ব : প্লেটোর ‘ রিপাবলিক ‘ গ্রন্থে আলোচিত বিষয়ের সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ হলো তাঁর ‘ দুই সত্য ‘ বা ‘ দুই জগৎ ‘ তত্ত্বের । একটি জগৎ হলো পরিদৃশ্যমান নিত্যকার জগৎ । অন্যটি হলো এ দৃশ্যমান জগতের উৎস , যা চিরন্তন , অদৃশ্য ও অপরিবর্তনীয় । প্লেটো মনে করেন , “ এ অপার্থিব অদৃশ্য জগৎই চরম সত্য ।

৪. ন্যায়বিচার : প্লেটোর ‘ The Republic ‘ গ্রন্থের অন্যতম বৈশিষ্ট্য বা প্রধান আলোচ্যবিষয় হলো ন্যায়বিচার ( Justice ) । ন্যায়বিচার সম্পর্কিত প্লেটোর বক্তব্য রিপাবলিকের কোন বিশেষ একটি অংশে কেন্দ্রীভূত নয় । ‘ রিপাবলিক ‘ গ্রন্থটির সামগ্রিক আলোচনার মধ্য থেকেই ন্যায়ের ধারণাটি তৈরি করা যেতে পারে । প্লেটোর কাছে ‘ ন্যায় ’ দয়া , মহত্ত্ব , সাহস কিংবা জ্ঞান নয় । এগুলো হলো রাষ্ট্র বা ব্যক্তির বিশেষ গুণাবলি । প্লেটো বলেছেন , “ ন্যায়কে বৃহৎ আকারে প্রত্যক্ষ করার লক্ষ্যে রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে । ” অর্থাৎ ব্যক্তির ক্ষেত্রে প্রয়োগের জন্য রাষ্ট্রে ‘ ন্যায় ‘ আবিষ্কৃত হয়েছে । তাঁর মতে , যা কিছু সর্বোত্তম রাষ্ট্রের অনুকূলে তাই ন্যায়বিচার ।

৫. শিক্ষাব্যবস্থা : প্লেটো তাঁর ‘ রিপাবলিক ‘ গ্রন্থে শিক্ষানীতি বা শিক্ষাব্যবস্থার উপর ব্যাপক আলোচনা করেছেন । প্লেটোর মতে , “ শিক্ষার মাধ্যমেই নাগরিকদের প্রকৃতি প্রদত্ত গুণাবলির উন্মেষ ও বিকাশ সাধিত হবে । ” শাসকগণ শিক্ষাপ্রাপ্ত হলে আইন , শাসন ও বিচারের বিষয়ে কোন চিন্তার কারণ থাকবে না । তিনি বলেছেন , উত্তম শিক্ষা লাভকারী শাসক অধর্মের কাজ করতে পারে না । সুতরাং দর্শন ছাড়া দার্শনিক শাসক তৈরি হতে পারে না ।

৬. সাম্যবাদ : শাসক শ্রেণীর সাম্যবাদ সম্পর্কে প্লেটো তাঁর ‘ রিপাবলিক ‘ গ্রন্থে আলোচনা করেছেন । শাসক শ্রেণীর সাম্যবাদ বিষয়টিকে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ তত্ত্ব বলা যায় । রাষ্ট্রের শাসন সংক্রান্ত দায়িত্ব নির্বিঘ্নে পালন করার লক্ষ্য নিয়ে প্লেটো অভিভাবক শ্রেণীর অর্থাৎ শাসক ও সেনাবাহিনীর জন্য ব্যক্তিগত সম্পত্তি ও পরিবার ব্যবস্থার বিলুপ্তির প্রস্তাব করেছেন । রাষ্ট্রের ঐক্যের জন্য এবং শাসক ও সেনাবাহিনী , অর্থাৎ অভিভাবক শ্রেণী যাতে নিঃস্বার্থভাবে রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করতে পারে , সেজন্য অভিভাবকদের ব্যক্তিগত পরিবার ও সম্পত্তি থাকতে পারবে না । অভিভাবক শ্রেণীর জন্য প্লেটোর এ প্রস্তাবই ‘ প্লেটোর সাম্যবাদ ‘ নামে অভিহিত ।

উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনা শেষে বলা যায় যে , প্লেটোর ‘ Republic ‘ নীতিমূলক রাষ্ট্র ব্যবস্থা সম্পর্কিত একটি একক গ্রন্থ । এখানে মানুষকে চিন্তা করা হয়েছে রাষ্ট্রের সভ্য হিসেবে , আর রাষ্ট্রকে চিন্তা করা হয়েছে একটি নৈতিক সংগঠন হিসেবে । ‘ রিপাবলিক ‘ মূলত বাস্তব উদ্দেশ্য নিয়ে গঠিত একটি গ্রন্থ ; ‘ Republic ‘ মনের দর্শন । তবে তা কেবল মনকে বিশ্লেষণ করার জন্য নয় মানুষকে সতর্ক করা ও পরামর্শ দেয়ার জন্যও । এ গ্রন্থে প্লেটো মানুষের মুক্তির জন্য সত্যকে অনুসন্ধান করেছেন । সুতরাং প্লেটো সম্পর্কে জ্ঞান লাভের আবশ্যকতা বর্তমান যুগেও রয়েছে একথা বলা যায় ।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন:01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!