ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ ইংরেজি রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079
Earn bitcoinGet 100$ bitcoin

প্রশ্নঃ ভারসাম্য বাজেটের পক্ষে যুক্তি দাও ।

[ad_1]

প্রশ্নঃ ভারসাম্য বাজেটের পক্ষে যুক্তি দাও ।

উত্তর : ভারসাম্য বাজেটের পক্ষে যুক্তিসমূহ নিম্নরূপ :

১. কার্যকর নিয়ন্ত্রণ : ভারসাম্য বাজেট সরকারকে মিতব্যয়ী হতে বাধ্য করে । সরকার অপচয়মূলক ব্যয় , অপ্রয়োজনীয় ব্যয় যাতে না করে তার জন্য শক্ত ব্যবস্থা হলো ভারসাম্য বাজেট । বাজেট ভারসাম্য রক্ষার জন্য সরকার নতুন নতুন রাজস্ব আদায় এবং অপ্রয়োজনীয় ব্যয়ের খাত নিয়ন্ত্রণ করতে পারে । তাই ভারসাম্য বাজেট নীতিতে সরকার অবশ্যই সুশৃঙ্খলভাবে ব্যয় নির্বাহ করে ।

২. মুদ্রাস্ফীতি বিরোধী : সুষম বাজেট হলো মুদ্রাস্ফীতি বিরোধী । উন্নয়নশীল দেশে মুদ্রাস্ফীতি একটি জ্বলন্ত সমস্যা । ভারসাম্য বাজেটে আয় ও ব্যয় সমান বলে চাহিদা বৃদ্ধি কম ঘটে ফলে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রিত থাকে ।

৩. মন্দাকালে সহায়ক : ভারসাম্য বাজেট হলো মন্দাকালের সাথে সমন্বিত । কারণ মন্দাকালে সরকার কমপক্ষে যদি সুষম বাজেট প্রণয়ন করতে পারে তাহলে ভারসাম্য বাজেট গুণক = ১ দ্বারা মন্দা কাটাতে ভূমিকা পালন করে ।

৪. জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্যতা : সরকার যখন সুষম বাজেট নীতি গ্রহণ করে তখন জনগণ সরকারের প্রতি আস্থাশীল থাকে । সরকারের ব্যয় নিয়ন্ত্রিত বলে জনগণ সন্তুষ্ট থাকে ।

৫. আয় বৈষম্য নিয়ন্ত্রিত: অসম বা ঘাটতি বাজেটের মাধ্যমে সরকার জনগণের নিকট থেকে ঋণ গ্রহণ করে । ফলে ঋণের সুদ আসল ধনীদের হাতে চলে যায় । এর দ্বারা আয় বৈষম্য বাড়ে । সুষম বাজেট আয় বৈষম্য সৃষ্টি করে না । বরং সরকার ধনীদের নিকট থেকে সংগৃহীত অর্থ যদি দরিদ্রদের জন্য ব্যয় করে তাহলে আয় বৈষম্য কমবে ।

[ad_2]

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন:01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!