ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079

প্রশ্নঃ বাহ্যিক সম্পদের প্রকারভেদ আলোচনা কর ।

[ad_1]

প্রশ্নঃ বাহ্যিক সম্পদের প্রকারভেদ আলোচনা কর ।

উত্তর ভূমিকা : উন্নয়নের জন্য প্রাপ্ত বাহ্যিক সম্পদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বৈদেশিক সাহায্য । বিদেশি সরকার বা কোন বিদেশি সংস্থা থেকে যে সম্পদ পাওয়া যায় তাকে বৈদেশিক সাহায্য বলে । বৈদেশিক সাহায্যোর প্রকারভেদ নিম্নরূপ :

১. শর্তহীন ও শর্তযুক্ত ঋণ : দাতা দেশ ঋণের সাথে শর্ত জুড়ে দিলে ঐ ঋণকে শর্তযুক্ত ঋণ বলে । যেমন- ঋণের অর্থ দিয়ে শুধু দাতা দেশ থেকে দ্রব্য ক্রয় কর যাবে , নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠান থেকে দ্রব্য ক্রয় করা যাবে , দাতা দেশ থেকে প্রকৌশলী নিয়োগ করতে হবে , দাতা দেশের রাজনৈতিক ইচ্ছা পূরণ করতে হবে ইত্যাদি শর্ত সম্বলিত ঋণকে শর্তযুক্ত ঋণ বলে । পক্ষান্তরে , যে ঋণের সাথে কোন শর্ত থাকে না তাকে শর্তবিহীন ঋণ বলা হয় ।

২. দান ও ঋণ : কোন বিদেশি সরকার বা সংস্থা থেকে অফেরতযোগ্য সুদবিহীন যে তহবিল বা সম্পদ পাওয়া যায় তাকে দান বলে । পক্ষান্তরে , নির্দিষ্ট সময় মেয়াদের মধ্যে যে তহবিল সুদ সমেত ফেরত দিতে হবে তাকে ঋণ বলে ।

৩. খাদ্য সাহায্য , পণ্য সাহায্য ও প্রকল্প সাহায্য : দাতা দেশগুলো যখন গম , চাউল ইত্যাদি দিয়ে সাহায্য করে তখন ঐ সাহায্যকে খাদ্য সাহায্য বলে । আর দ্রব্যসামগ্রীর আকারে যে বৈদেশিক সাহায্য আসে তাকে পণ্য সাহায্য বলে । পক্ষান্তরে , নির্দিষ্ট সেতু নির্মাণ , নির্দিষ্ট বাঁধ নির্মাণ ইত্যাদি প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য যে সাহায্য দেয়া হয় তাকে প্রকল্প সাহায্য বলে ।

৪. কোমল ও কঠিন ঋণ : যে ঋণে সুদের হার কম এবং ফেরত দেয়ার মেয়াদ বেশি তাকে কোমল ঋণ বলে । পক্ষান্তরে , যে ঋণে সুদের হার বেশি এবং স্বল্পসময়ে ফেরত দিতে হবে তাকে কঠিন ঋণ বলে ।

৫. বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক সাহায্য : যখন সরাসরি দাতা দেশ ও গ্রহীতা দেশের মধ্যে বৈদেশিক সাহায্য সংক্রান্ত চুক্তি হয় তখন ঐ সাহায্যকে দ্বিপাক্ষিক সাহায্য বলে । পক্ষান্তরে , যখন কোন আন্তর্জাতিক সংস্থা অকেকগুলো দাতা দেশের সমন্বয়ের মাধ্যমে গ্রহীতা দেশকে সাহায্য দেয় তখন ঐ সাহায্যকে বহুপাক্ষিক সাহায্য বলা হয় ।

৬. আর্থিক সাহায্য ও করিগরি সাহায্য : কোন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ সাহায্য দিলে তাকে আর্থিক সাহায্য বলে । পক্ষান্তরে , প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য প্রকৌশলী যোগান দেয়া হলে তাকে কারিগরি সাহায্য বলে ।

উপসংহার : বাহ্যিক সম্পদ উপর্যুক্তভাবেই বিভক্ত করা সম্ভব ।

[ad_2]



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!