ডিগ্রি প্রথম এবং অনার্স দ্বিতীয় বর্ষ ২০২৩ এর সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯

 ডিগ্রী সকল বই

পরিসংখ্যানের সংজ্ঞা দাও ।

অথবা, পরিসংখ্যান কী?
অথবা, পরিসংখ্যান কাকে বলে?
অথবা, পরিসংখ্যানের সংজ্ঞা লিখ।
অথবা, পরিসংখ্যান বলতে কী বুঝ?
উত্তর৷ ভূমিকা :
শাসনকার্য পরিচালনার সুবিধার জন্য সর্বপ্রথম পরিসংখ্যান বা ‘Statistics’ শব্দটির উৎপত্তি হয়। ক্রমে ক্রমে মানব সভ্যতার ক্রমবিকাশের ফলে ইউরোপে মানব কল্যাণে ব্যবহৃত বিষয়াদির উপর ভিত্তি করে পরিসংখ্যান বিভিন্ন সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক প্রভৃতি ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রকার তথ্য প্রদান ও সংগ্রহের কাজে বিশেষ বা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে শুরু করে ।
পরিসংখ্যান : ইংরেজি ‘Statistics’ শব্দের বাংলা প্রতিশব্দ হচ্ছে পরিসংখ্যান । ‘Statistics’ শব্দটি ইটালীয় শব্দ ‘Statista’ থেকে এসেছে, যার অর্থ ‘রাজনৈতিক ক্ষমতাসম্পন্ন রাষ্ট্র’। ‘Statistics’ শব্দটি সর্বপ্রথম Gottfired Achen Wall ১৯৪৯ খ্রিস্টাব্দে ব্যবহার করেন। এ বিষয়কে তিনি স্বাধীন ও স্বতন্ত্র হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি রাজনৈতিক ক্ষমতাসম্পন্ন বিভিন্ন দেশের সাথে পার্থক্য খুঁজতে গিয়ে এ বিষয়টি আবিষ্কার করেন । সাধারণত পরিসংখ্যান বলতে সে পদ্ধতিকে বুঝায়, যা প্রয়োগ করে পরস্পর সম্পর্কযুক্ত সংখ্যাভিত্তিক বিবরণসমূহের বিশ্লেষণ ও ব্যাখ্যা করা সম্ভব হয়। সম্পর্কহীন সংখ্যাসমূহকে পরিসংখ্যানের অন্তর্ভুক্ত করা যায় না । আবার কোন একটি বিচ্ছিন্ন সংখ্যাও পরিসংখ্যান বলে বিবেচিত হবে না।
প্রামাণ্য সংজ্ঞা : বিভিন্ন পরিসংখ্যানবিদ বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে পরিসংখ্যানের বিভিন্ন সংজ্ঞা প্রদান করেছেন । নিম্নে সেগুলো আলোচনা করা হলো :
A. L. Bowley পরিসংখ্যানকে ‘গড়ের বিজ্ঞান’ (Science of average) নামেও অভিহিত করেছেন । যদিও গড় তথ্যাবলি বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ কৌশল, তথাপি এটি বহুসংখ্যক পরিসংখ্যান প্রণালির মধ্যে একটি প্রণালি মাত্র । কাজেই এটা সমগ্র পরিসংখ্যান বিজ্ঞানের স্থলাভিষিক্ত হতে পারে না ।
ডব্লিউ. আই. কিং (W.I. King) এর মতে, “Statistics is the science of decision making in the field of uncertainty.” অর্থাৎ, অনিশ্চিত বিষয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়ার বিজ্ঞানই হলো পরিসংখ্যান। এ সংজ্ঞাতে কোন বিষয় সম্পর্কে ব্যাখ্যামূলক সিদ্ধান্ত নেয়ার উপর জোর দেয়া হয়েছে। Selingman এর পরিসংখ্যানের সংজ্ঞানুসারে, “কোন অনুসন্ধানে তথ্য সংগ্রহ, শ্রেণিবদ্ধকরণ, উপস্থাপন, তুলনাকরণ এবং ব্যাখ্যাকরণই হলো পরিসংখ্যান।”
ওয়েবস্টার (Webstar) এর মতে, “পরিসংখ্যান হলো কোন রাষ্ট্রে জনসাধারণের অবস্থা সম্পর্কিত শ্রেণিবদ্ধ সংখ্যার সারণি অথবা যে কোন রূপ সারণি আকারে বা শ্রেণি বিন্যাসের তথ্যাবলি বিশেষভাবে সেসব তথ্যগুলো সংখ্যা মাধ্যমে প্রকাশ করা যায়।”
অধ্যাপক বডিংটন (Boddington) এর মতে, পরিসংখ্যান হলো “Science of estimates and probabilities.” অর্থাৎ, প্রাক্কলন এবং সম্ভাবনাসমূহের বিজ্ঞানই হলো পরিসংখ্যান; উল্লিখিত সংজ্ঞায় উপাত্তসমূহের চেয়ে তাদের বৈশিষ্ট্যে প্রাক্কলিত মানের এবং সম্ভাবনার উপর জোর দেয়া হয়েছে ।
স্যার আর. এ. ফিশার (Sir. R. A. Fisher) এর মতে, “পরিসংখ্যান বিজ্ঞান হলো ব্যবহারিক গণিতের একটি গুরুত্বপূর্ণ শাখা যেখানে সংগৃহীত তথ্যকে গাণিতিকভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয় ।”
উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে পরিশেষে আমরা বলতে পারি, পরিসংখ্যানের উপযুক্ত সংজ্ঞাসমূহ নভাবে স্বয়ংসম্পূর্ণ নয় । পরিসংখ্যানের সবচেয়ে সুন্দর ও পূর্ণাঙ্গ সংজ্ঞা প্রদান করেছেন অধ্যাপক এইচ. সেক্রিস্ট। তাঁর মতে, পরিসংখ্যান দ্বারা আমরা কোন পূর্বনির্ধারিত উদ্দেশে শ্রেণিবদ্ধভাবে প্রভাবিত তথ্যাবলির সমষ্টিকে বুঝে থাকি । অধ্যাপক সেক্রিস্ট প্রদত্ত এ সংজ্ঞাকে পরিসংখ্যানের আদর্শ সংজ্ঞা বলা হয়ে থাকে ।



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!