ডিগ্রি প্রথম এবং অনার্স দ্বিতীয় বর্ষ ২০২৩ এর সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯

 ডিগ্রী সকল বই

নারীবাদের বিভিন্ন ধারা বা প্রত্যয়গুলো কী কী?

অথবা, নারীবাদের বিভিন্ন মতবাদগুলো কী কী?
অথবা, নারীবাদের ৫টি মতবাদ সংক্ষেপে আলোচনা কর।
অথবা, নারীবাদের কয়েকটি মতবাদ বা প্রত্যয়গুলো সংক্ষেপে ব্যাখ্যা কর।
অথবা, নারীবাদের প্রত্যয়গুলো সম্পর্কে তুমি কী জান? সংক্ষেপে লিখ।
অথবা, নারীবাদের বিভিন্ন ধারাগুলোর সংক্ষিপ্ত পরিচয় দাও।
উত্তর৷ ভূমিকা :
নেপোলিয়ান বোনাপার্ট বলেন, “Women are nothing but machines for producing children.” যুগে যুগে পুরুষের এসব ধারণাকে কেন্দ্র করেই সৃষ্টি করেছে পুরুষশাসিত সমাজ। এ সমাজ স্বীকার করেনি নারীর প্রতিভা, বিকশিত হতে দেয়নি নারীকে। আর তাই আজ বিশ্বজুড়ে নারীমুক্তির বিষয়টি প্রতিবাদী হয়ে উঠেছে। তৈরি করেছে নারীবাদের বিভিন্ন মতবাদ।
নারীবাদের বিভিন্ন প্রত্যয় বা ধারা : নারীবাদী চিন্তাচেতনা বিশ্লেষণে যে মতবাদসমূহ লক্ষ করা যায় সেগুলো নিম্নরূপ :
১. আধুনিক নারীবাদ : আধুনিক নারীবাদীরা নারী পুরুষের বৈষম্যের জন্য দায়ী করে অসচেতনতাকে। সমাজ পরিবর্তনের জন্য তারা সামাজিক বিপ্লবের কথা বলেন। তারা সকল ক্ষেত্রে নারীর বৈষম্যের কথা উল্লেখ করেন। এ বৈষম্য থেকে মুক্তির জন্য দরকার শিক্ষা, সচেতনতা এবং গণ আন্দোলন।
২. সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ : র‍্যাডিক্যাল এবং মার্কসীয় নারীবাদের এক ধরনের মিলিত রূপ হলো সমাজতান্ত্রিক নারীবাদ। সমাজতান্ত্রিক নারীবাদীরা নারী পুরুষ বৈষম্যের জন্য পিতৃতন্ত্রকে দায়ী করে। তাই পিতৃতন্ত্রের বিলুপ্তির মাধ্যমে নারীমুক্তি সম্ভব।
৩. মৌলিক নারীবাদ : বিংশ শতাব্দীর ৬০ এর দশকে মৌলিক নারীবাদের উৎপত্তি। মৌলিক নারীবাদীরা নারী নির্যাতনের মূলে জৈবিক কারণকে দায়ী করে। প্রকৃতি নারী ও পুরুষের মাঝে বৈষম্য সৃষ্টি করেছে। সন্তানধারণের ক্ষমতা দিয়ে নারীকে পুরুষের চেয়ে দুর্বল করা হয়েছে।
৪. মার্কসীয় নারীবাদ : মার্কসবাদী মতাদর্শ হলো মার্কসীয় মতবাদের ভিত্তি, যা ব্যক্তিমালিকানাভিত্তিক শ্রেণিবিভক্ত সমাজকেই নারী পরাধীনতার মূল কারণরূপে চিহ্নিত করে। মার্কসীয় নারীবাদীরা মনে করেন ব্যক্তিমালিকানা সমাজে পরিবার হলো নারীর জন্য কারাগার।
৫. সাংস্কৃতিক নারীবাদ : কিছুটা মৌলিক নারীবাদ এবং কিছুটা সমাজতান্ত্রিক নারীবাদের মিলিত রূপ হলো সাংস্কৃতিক নারীবাদ। এ নারীবাদীরা মনে করেন লিঙ্গ সম্পর্ক সামাজিক ও ঐতিহাসিকভাবে সৃষ্টি এবং তা পরিবর্তনযোগ্য।
উপসংহার : আলোচনা শেষে আমরা বলতে পারি, নারী পুরুষ বৈষম্য থেকেই বিভিন্ন নারীবাদী তত্ত্বের উদ্ভব। প্রতিটি তত্ত্বে নারী কিভাবে বৈষম্যের স্বীকার হয় এবং কিভাবে বৈষম্য দূর করা যায় সে সম্পর্কে দিকনির্দেশনা
দেয়া হয়েছে।



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!