রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত ‘একরাত্রি’ গল্পে সেকেন্ড মাস্টারের নিঃসঙ্গতার চিত্র গল্পকার তুলে ধরেছেন। এ গল্পে গল্পকথক এবং লেখক বাল্যসঙ্গী ছিল। তারা দুজনে একসাথে পাঠশালায় যেত এবং বউ বউ খেলা করতো। গল্পকথক যখন সুরবালার বাড়িতে যেতো তখন সুরবালার মা লেখককে খুব আদর যত্ন করতো। আর সুরবালার মা যে সুরবালার বাবা বিয়ের কথা ভাবে তাও লেখক বুঝতে পারে। আর তাই সুরবালার উপর তার যেন বিশেষ কিছু দাবি অধিকার বেড়ে যায় বলে গল্পকথক মনে করতেন। আর এই অধিকারের জন্যই যে সুরবালার উপর নানা শাসন এবং উপদ্রব চালাত। সুরবালাকে গল্পকথক যা বলতো সে তাই করতো অর্থাৎ লেখকের ন্যায়-অন্যায় সকল আবদারই রক্ষা করতো। সুরবালার সৌন্দর্যের কথা পাড়ার সকলে বলাবলি করলেও গল্পকথকের তাতে কোন ভ্রুক্ষেপই ছিল না। গল্পকথক সুরবালার উপরই প্রভুত্ব করা ছাড়া আর কিছুই ভাবতো না। এভাবেই সুরবালা এবং লেখকের বাল্যকাল অতিবাহিত হয়। মূলত সেকেন্ড মাস্টার সুরবালাকে তার নিজের মানুষ বা একান্ত তার অধিকারের সম্পদ হিসেবে বিবেচনা করতো।

https://topsuggestionbd.com/%e0%a6%8f%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%bf-%e0%a6%97%e0%a6%b2%e0%a7%8d%e0%a6%aa-%e0%a6%b0%e0%a6%ac%e0%a7%80%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a8/
admin

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!