ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079

Earn bitcoin
Get 100$ bitcoin

সামাজিক অনুশীলনে সামাজিক গবেষণার গুরুত্ব লিখ ।

অথবা, বাংলাদেশের সামাজিক উন্নয়নে সামাজিক গবেষণার গুরুত্ব লিখ।
অথবা, সামাজিক অনুশীলনে সামাজিক গবেষণার তাৎপর্য লিখ।
অথবা, বাংলাদেশের সামাজিক উন্নয়নে সামাজিক গবেষণার প্রয়োজনীয়তা আলোচনা কর।
উত্তর৷ ভূমিকা :
মানব সভ্যতার এই চরম বিকাশের ক্ষণে সামাজিক গবেষণা অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে বিবেচিত হচ্ছে। আমাদের সমাজ দ্রুত পরিবর্তনের ধারায় ধাবমান। তাই এই ধাবমান বিশ্বের আরো অগ্রগতির জন্য দরকার বস্তুনিষ্ঠ জ্ঞান যা দিতে পারে সামাজিক গবেষণার মতো একটা বিষয়। বর্তমানকালের কিছু বাস্তবতা আমাদের সামাজিক গবেষণার কথা মনে করিয়ে দেয়। উন্নয়নশীল দেশ বিশেষ করে বাংলাদেশের উন্নয়ন বা অগ্রগতির জন্য সামাজিক গবেষণার প্রয়োজনীয়তা অবশ্যম্ভাবী হয়ে পড়েছে ।
বাংলাদেশে সামাজিক গবেষণার গুরুত্ব : বাংলাদেশের ক্ষেত্রে সামাজিক গবেষণা যেসব অবদান রেখে জাতিকে সমৃদ্ধি দান করতে পারে তা নিম্নে প্রদত্ত হলো :
১.দেশে ব্যবহৃত ও অব্যবহৃত বস্তুগত ও অবস্তুগত সম্পদ খুঁজে বের করে তা জনগণের কল্যাণে নিয়োগ করলে উন্নয়ন আরো ত্বরান্বিত হবে।
২.আমাদের দেশের সামাজিক পরিবর্তন ও সামাজিক উন্নয়নের জন্য সামাজিক প্রতিষ্ঠান, সংঘ, মূল্যবোধ, দল, সম্প্রদায়ের বিভিন্ন দিক অনুধ্যান করে ।
৩মানব সভ্যতা বিকাশের ক্ষেত্রে তথ্য ও জ্ঞান সরবরাহ সামাজিক নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখতে সহায়তা করে ।
৪. আমাদের সমাজকে অন্ধকার থেকে মুক্ত করার জন্য ভ্রান্ত ও অনাবশ্যকীয় ধারণা, তথ্য, জ্ঞান, প্রক্রিয়া, পদ্ধতি ও তত্ত্ব দূর করে কার্যকরী ও সঠিক তত্ত্ব প্রতিষ্ঠা করা ।
৫. সামাজিক গবেষণা আঞ্চলিক ও জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনা ও নীতি নির্ধারণ করে থাকে ।
৬. সামাজিক গবেষণার মাধ্যমে সামাজিক পরিবর্তন, বিবর্তনের ধারা ভবিষ্যতের দিকনির্দেশনা দিয়ে থাকে ।
৭.পুরাতন ধ্যানধারণাকে বাদ দিয়ে সামাজিক গবেষণা নতুন ধ্যানধারণা ও কর্মপন্থা প্রবর্তন করে থাকে ।
৮.আমাদের দেশে এখনো অধিকাংশ লোক দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করছে। ফলে উপেক্ষিত ও অবহেলিত ক্ষেত্রের অসমতা দূর করে আর্থসামাজিক বিকাশের জন্য সামঞ্জস্য প্রয়োজন ।
৯.অনগ্রসর শ্রেণির স্বার্থ রক্ষায় যথাবিহিত ব্যবস্থা গ্রহণে মানুষকে সচেতন ও উদ্যোগী করে গড়ে তোলার জন্য সামাজিক গবেষণা প্রয়োজন ।
১০. পদ্ধতিগুলো আরও বেশি অর্থবহ ও গ্রহণযোগ্য করতে প্রচলিত জাতীয় সেবাদান ব্যবস্থা সাহায্য করে।
১১. আমাদের দেশে সামাজিক পরিবর্তনের ধারা ও প্রভাবকে বিশ্লেষণ করে পরিবর্তিত অবস্থার সাথে উপযুক্ত কৌশল উদ্ভাবনে সাহায্য করা ।
১২. সামাজিক, মনস্তাত্ত্বিক ও অপরাধগত সমস্যা খুঁজে তার সমাধান প্রক্রিয়া উদ্ভাবন ও বাস্তবায়নের জন্য সামাজিক গবেষণা প্রয়োজন ।
১৩. সামাজিক গবেষণার মাধ্যমে অনুকূলে জাতীয় জনমত গঠন করে একটি দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করা।
১৪. আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে জাতীয় অবস্থান, নির্ভরশীলতা ও সহযোগিতার মাত্রা নির্ধারণ করার লক্ষ্যে সামাজিক গবেষণা অপরিহার্য ।
১৫. জনজীবনে সামাজিক কল্যাণ সর্বাধিক করার ক্ষেত্রে গবেষণার গুরুত্ব অপরিসীম।
১৬. কুসংস্কার ও অজ্ঞানতাজনিত বিপদ থেকে গবেষণা রক্ষা করে ।
১৭. পূর্বোক্তিকরণ, সতর্কীকরণ ও পরিকল্পনা প্রয়োজনের জন্য সামাজিক গবেষণা প্রয়োজন ।
উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনা থেকে বলা যায় যে, দেশের আর্থসামাজিক, রাজনৈতিক ক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য সামাজিক গবেষণা অত্যন্ত গুরুত্বের দাবিদার। বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হওয়ার কারণে এর আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য গবেষণা বিশেষ গুরুত্ব বহন করে থাকে । দেশকে একটা শক্তিশালী অবস্থানে দাঁড় করানোর জন্য প্রয়োজন অর্থপূর্ণ ও বস্তুনিষ্ঠ গবেষণা । সব মিলিয়ে একটা কথা বলা যায় যে, আমাদের দেশে সামাজিক গবেষণায় অনেক সমস্যা থাকলেও এর ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা আছে । এই সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে আমরা আমাদের দেশকে সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি ।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন:+8801979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!