ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079

প্রশ্নঃ নোট জাতীয় উৎপাদন ও মোট দেশজ উৎপাদনের মধ্যে পার্থক্য কী ?

[ad_1]

প্রশ্নঃ নোট জাতীয় উৎপাদন ও মোট দেশজ উৎপাদনের মধ্যে পার্থক্য কী ?

উত্তর : জাতীয় আয় সম্পর্কিত বিভিন্ন ধারণার মধ্যে মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন ও মোট জাতীয় উৎপাদন ধারণা দৃষ্টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ । এ দুটি ধারণা সম্পর্কে নিম্নে বিশদভাবে আলোচনা করা হলো : –

i . মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন GDP : একটি নির্দিষ্ট সময়ে একটি দেশের অভ্যন্তরে যে পরিমাণ চূড়ান্ত পর্যায়ের দ্রব্যসামগ্রী ও সেখাকর্ম উৎপাদিত হয় তাদের আর্থিক মূল্যের সমষ্টিকে মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বলে ।

ধরা যাক , একটি নির্দিষ্ট সময়ে একটি দেশের অভ্যন্তরে Q1 , Q2 , Q3 উৎপাদিত হয় । যদি উক্ত দ্রব্যসামগ্রীর ও সেবাকর্মের মূল্য যথাক্রমে , P1 , P2 , P3 ,……………Pn অভ্যন্তরীণ উৎপাদন হবে ,

GDP = P „ Q1 + P2Q2 + P3Q3 +…………….. + Pn Qn

ΣnP1.Q1

i = n

মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনকে অন্যভাবে সংজ্ঞায়িত করা যায় , একটি নির্দিষ্ট সময়ে একটি দেশের অভ্যন্তরে মোট ভোগ ব্যয় , বিনিয়োগ ব্যয় ও সরকারি ব্যয়ের সমষ্টিকে মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বলা হয় ।

অর্থাৎ GDP = C + I + G

যেখানে C = মোট ভোগ ব্যয়

I = মোট বিনিয়োগ ব্যয়

G = মোট সরকারি ব্যয়

নোট জাতীয় উৎপাদন GNP : চূড়ান্ত উৎপাদনের ভিত্তিতে মোট জাতীয় উৎপাদন নিম্নরূপে সংজ্ঞায়িত করা যায় । একটি নির্দিষ্ট সময়ে একটি দেশের ভিতরে ও বাইরে যে পরিমাণ চূড়ান্ত দ্রব্যসামগ্রী ও সেবা উৎপাদিত হয় তাদের আর্থিক মূল্যের সমষ্টিকে মোট জাতীয় উৎপাদন বলে । অন্যভাবে বিদেশ থেকে অর্জিত নীট আয় সমেত মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনকে মোট জাতীয় উৎপাদন বলে । গাণিতিক উপায়ে ,

GNP = GDP + ( X – M )

বা , GNP =Σ ” P₁Q1 + ( X – M )

i = n

যেখানে , X = একটি নির্দিষ্ট সময়ে বিদেশ থেকে অর্জিত দেশীয় নাগরিকদের পাওনা ।

M = একটি নির্দিষ্ট সময়ে দেশীয় নাগরিকদের নিকট থেকে বিদেশিদের পাওনা ।

ব্যয় পদ্ধতিতে নোট জাতীর পারের সংজ্ঞা নিরূপ : একটি নির্দিষ্ট সময়ে বিদেশ থেকে অর্জিত নীট আয় সমেত দেশের অভ্যন্তরীণ মোট ভোগ বায় , মোট বিনিয়োগ ব্যয় ও মোট সরকারি ব্যয়ের সমষ্টি মোট জাতীয় উৎপাদন ।

GNP = C + I + G + ( X – M )

ii . GNP এর ক্ষেত্রে কেবলমাত্র দেশের নিজস্ব জনগণের অবদান রয়েছে । কিন্তু GNP ডে বিদেশিদের মূলধন ও বিনিয়োগজনিত অবদানও থাকতে পারে ।

iii . GNP ও GDP এর মধ্যে কখনো সমতা থাকতে পারে আবার কখনো তফাৎ থাকতে পারে । যেমন .

ক. GNP = GDP + ( X – M )

X = M হলে বা X – M = 0 হয় তখন GNP = GDP .

খ. আবার X > M হলে বা X – M > 0 হয় তখন GNP > GDP হয় ।

গ . আবার X < M হলে যা X – M < 0 হয় তখন GNP GDP হয় ।

iv . GDP থেকে দেশের প্রকৃত অবস্থা জানা যায় না । কারণ এতে বিদেশিদের অবদান অন্তর্ভুক্ত । পক্ষান্তরে , GNP কেবল দেশীয় নাগরিকদের অবদান বলে তা থেকে দেশের প্রকৃত অবস্থা নিরূপণ করা সম্ভব ।

v . GDP পরিমাপ করা GNP এর তুলনায় সহজ । কেননা GNP গণনার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় বৈদেশিক লেনদেনের চলতি হিসাব নির্ণয় করা কঠিন ব্যাপার ।

vi . GDP এর তুলনায় GNP একটি প্রসারিত ধারণা , কারণ GNP তে GDP অন্তর্ভুক্ত থাকে । বস্তুত GNP ও GDP উভয়ের পৃথক গুরুত্ব রয়েছে । তবে বাংলাদেশের ন্যায় অভাব রয়েছে GNP এর তুলনায় GDP এর ব্যবহারই অধিক পরিলক্ষিত হয় ।

[ad_2]



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!