অথবা, কেন নারী শিক্ষা বাধাগ্রস্ত হয়?
অথবা,নারী শিক্ষার অনগ্রসরতার কারণ ব্যাখ্যা কর।
অথবা, নারী শিক্ষার পশ্চাৎপদতার কারণগুলো উল্লেখ কর।
অথবা, শিক্ষা ক্ষেত্রে নারীর পিছিয়ে থাকার কারণ সম্পর্কে লিখ।
অথবা, নারী শিক্ষার বাধাগ্রস্ত হওয়ার কারণ উল্লেখ কর।
উত্তর৷ ভূমিকা
: মাও সেতুং বলেছেন, “No true revolution is possible without women’s liberation.” আর প্রকৃত মুক্তিই সম্ভব নারী শিক্ষার মাধ্যমে। দেশের সুষম আর্থসামাজিক বিকাশ ও উন্নয়নের জন্য পুরুষের পাশাপাশি মহিলাদেরও সমহারে অংশগ্রহণ একান্ত আবশ্যক। এ অংশগ্রহণ তখনই সম্ভব যখন তাদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির উদ্যোগ নেয়া হয়। আর এ সচেতনতা সৃষ্টির জন্যই প্রয়োজন শিক্ষার। তাই পরিবার, দেশ ও জাতির উন্নয়নে নারী শিক্ষার ভূমিকা অপরিহার্য।
নারী শিক্ষার অনগ্রসরতার কারণ : নিম্নে নারী শিক্ষার অনগ্রসরতার কারণগুলো আলোচনা করা হলো :
১. সামাজিক কারণ : আমাদের সমাজব্যবস্থা পুরুষতান্ত্রিক। এ সমাজে মেয়েদের স্কুলে পাঠানোর ব্যাপারে তেমন কোনো চাপ নেই। জনমনে ব্যাপক বিশ্বাস যে, সুমাতা ও সুগৃহিণী হওয়ার জন্য প্রতিষ্ঠানিক শিক্ষার প্রয়োজন নেই। আর স্কুলে যে শিক্ষা দেয়া হয় তা গৃহকর্মের মাধ্যমে অর্জিত ব্যবহারিক জ্ঞানের স্থান নিতে পারে না। কাজেই তারা যদি স্কুলে
যায় তাহলে এটা কেবল সময়ের অপব্যয় মাত্র।
২. ধর্মীয় অপব্যাখ্যা : এ মনোভাবের সাথে যুক্ত হয়েছে ধর্মীয় মনোভাব, যা মেয়েদের স্কুল ত্যাগের একটি কারণ।নকন্যাশিশু কৈশোরে পা দিতেই তাকে পর্দার অন্তরালে আড়াল করা হয়, স্কুলে যেতে দেয়া হয় না। বাইরের সমাজে তাকে মিশতে দেয়া হয় না। সেখানে নারী শিক্ষার বিকাশ ঘটাবে কিভাবে?
৩. অর্থনৈতিক কারণ : অর্থনৈতিক কারণ নারী শিক্ষার একটা বড় অন্তরায়। কেননা, যেখানে অর্থ নেই সেখানেমআবার মেয়েদের পড়াশুনার জন্য ব্যয় একটা বাড়তি খরচ বলে অনেকে মনে করে। গ্রামে নারীদের জন্য মাসিক ব্যয় ২৭% এবং পুরুষদের জন্য ৭৩%। তাহলে দেখা যাচ্ছে, মহিলাদের জন্য শিক্ষা খরচ পুরুষের অর্ধেকেরও কম।
৪. বাল্যবিবাহ : আমাদের দেশের আবহাওয়ার দরুন অতিঅল্প বয়সেই মেয়েরা যৌবন প্রাপ্ত হয়। সেহেতু মেয়েদের ছোটবেলা থেকেই শিখানো হয় যে সংসারই তার আসল কর্মক্ষেত্র। আর এজন্যই অল্প বয়সেই তাদের বিবাহ দেয়া হয়। তাই বাল্যবিবাহ নারী শিক্ষার পশ্চাৎপদতার একটি বিরাট কারণ।
উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনা থেকে বলা যায় যে, কোন দেশের উন্নয়নের লক্ষ্যে নারী পুরুষ উভয়কেই শিক্ষিত করে তুলতে হবে। অন্যথায় উন্নয়ন সম্ভব নয়। বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের ভাষায়, “নারী ও নর উভয়ে একই বস্তুর অঙ্গ বিশেষ। তাছাড়া সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে মহিলাদের সামাজিক, অর্থনৈতিক উন্নয়ন আবশ্যক। আর তা কেবল
উপযুক্ত নারী শিক্ষা বিস্তারের মাধ্যমেই সম্ভব।

https://topsuggestionbd.com/%e0%a6%b8%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%a4%e0%a6%ae-%e0%a6%85%e0%a6%a7%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%af%e0%a6%bc-%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%82%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b6%e0%a7%87/
admin

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!