ডিগ্রি প্রথম এবং অনার্স দ্বিতীয় বর্ষ ২০২৩ এর সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯

 ডিগ্রী সকল বই

জাতীয় পলিউন্নয়ন নীতির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসমূহ আলোচনা কর ।

অথবা, জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতি ২০০১ এর কার্যক্রম বিস্তারিতভাবে আলোচনা কর।
অথবা, জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতির লক্ষ্য আলোচনা কর।
অথবা, জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতির উদ্দেশ্য বর্ণনা কর।
অথবা, জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা কর।
অথবা, জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতির ২০০১ এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য আলোচনা কর।
উত্তর৷ ভূমিকা :
“A policy of rural development is a policy of national development.” – Julias Nyrer
উন্নয়ন সংক্রান্ত ধারণায় ‘পল্লিউন্নয়ন’ বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থান অধিকার করে আছে। পল্লিউন্নয়ন বলতে এমন একটি বিশেষ প্রক্রিয়াকে অন্তর্ভুক্ত করে, যা পল্লির সর্বস্তরের জনগণের মৌলিক চাহিদা পূরণের নিশ্চয়তা প্রদানসহ দেশের সার্বিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। জনগণের মৌলিক চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে ও সাংবিধানিক প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে প্রণয়ন করা হয় ‘জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতি- ২০০১’ পল্লিউন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সর্বস্তরের জনগণের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে এ নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়।
জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতি-২০০১ : বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে পল্লিউন্নয়ন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ পল্লির জনগোষ্ঠীকে বাদ দিয়ে জাতীয় উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই পল্লিউন্নয়নকে সাংবিধানিকভাবে মূল্যায়ন করার লক্ষ্যে প্রণীত হয়েছে ‘জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতি- ২০০১’। সংবিধানের ১৪ নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, রাষ্ট্রের অন্যতম মৌলিক দায়িত্ব হবে মেহনতি মানুষকে, কৃষক শ্রমিক শ্রেণিকে এবং সর্বস্তরের জনগণকে শোষণমুক্ত করা। এ নীতির প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে দারিদ্র্যমুক্ত সমাজ গড়ে তোলা, যেখানে বৈষম্য থাকবে না।
নীতির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য : ‘জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতি-২০০১’ এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ছিল নিম্নরূপ :
ক. পল্লির দরিদ্র জনগোষ্ঠীর বিশেষ করে নারীদের আর্থসামাজিক উন্নয়ন নিশ্চিত করা।
খ. মানুষকে তার উদ্ভাবনশীলতাকে জাগিয়ে তুলে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করা।
গ. গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর মধ্যে ঢালাওভাবে কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা প্রদানকরণ।
ঘ. সাংবিধানিক ভিত্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে গ্রামীণ সমাজে সাম্যভিত্তিক অর্থনৈতিক কাঠামো প্রতিষ্ঠা করা।
ঙ. গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর মৌলিক চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে কর্মংসংস্থান ও আয় বৃদ্ধির নিশ্চয়তা প্রদান করা।
চ. ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে সহায়তা করা।
ছ. গ্রামীণ অবকাঠামোগত উন্নয়ন নিশ্চিত করা।
জ. কর্মমুখী শিক্ষার প্রসার ঘটানোর মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি গঠন করা।
ঝ. গ্রামীণ ও শহর জীবনের মধ্যে বৈসম্য কমিয়ে সম্পদের সুষম বণ্টন নিশ্চিত করা ইত্যাদি।
উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, বাংলাদেশের গ্রামীণ দরিদ্র অসহায় মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের মাধ্যমে জাতীয় উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করা জাতীয় পল্লিউন্নয়ন নীতির মূল লক্ষ্য। এ কর্মসূচির লক্ষ্য-উদ্দেশ্যগুলো যথাযথভাবে পালন করা গেলে সত্যিই দেশের ইতিবাচক আর্থসামাজিক পরিবর্তন সূচিত হবে।



পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!