ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০২২ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ এবং অনার্স প্রথম বর্ষ এর রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079

Earn bitcoin
Get 100$ bitcoin

চতুর্থত অধ্যায় সামাজিক গবেষণার পর্যায় বা ধাপসমূহ

ক-বিভাগ

নেকমিয়াস এবং নেকমিয়াস সামাজিক গবেষণার ধাপগুলোকে কয়টি পর্যায়ে
ভাগ করেছেন?
উত্তর : নেকমিয়াস এবং নেকমিয়াস সামাজিক
গবেষণার ধাপগুলোকে সাতটি পর্যায়ে ভাগ করেছেন ।
সামাজিক গবেষণার প্রথম ধাপ কোনটি?
উত্তর : সামাজিক গবেষণার প্রথম ধাপ হলো
সমস্যা চিহ্নিতকরণ ও নির্ধারণ ।
পূর্বানুমান কী?
উত্তর : পূর্বানুমান হচ্ছে একটি ক্ষণস্থায়ী
সাধারণীকরণ, যার যথার্থতা প্রমাণযোগ্য ।
গবেষণা নকশাকে কী নামে অভিহিত করা হয়ে থাকে?
উত্তর : গবেষণা নকশাকে বৈজ্ঞানিক কর্ম
প্রাথমিক উৎস হতে উপাত্ত সংগ্রহের কৌশল কয়টি ও কী কী?
উত্তর : প্রাথমিক উৎস হতে উপাত্ত সংগ্রহের কৌশল তিনটি । যথা : ক. পর্যবেক্ষণ; খ. সাক্ষাৎকার ও গ. প্রশ্নমালা ।
পর্যবেক্ষণ কী?
উত্তর : পর্যবেক্ষণ হলো কোনো কিছু গভীরভাবে নিরীক্ষণ করা।
কাকে বৈজ্ঞানিক গবেষণার ভিত্তি বলা হয়ে থাকে?
উত্তর : পর্যবেক্ষণকে বৈজ্ঞানিক গবেষণার ভিত্তি বলা হয়ে থাকে ।
সামাজিক গবেষণায় প্রাথমিক উপাত্ত সংগ্রহের একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং বহুল প্রচলিত কৌশল কোনটি?
উত্তর : সামাজিক গবেষণায় প্রাথমিক উপাত্ত সংগ্রহের একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং বহুল প্রচলিত কৌশল সাক্ষাৎকার ।
কে সমাজবিজ্ঞানকে ‘সাক্ষাৎকারের বিজ্ঞান’ বলে অভিহিত করেছেন?
উত্তর : Benny and Hughes সমাজবিজ্ঞানকে ‘সাক্ষাৎকারের বিজ্ঞান’ বলে অভিহিত করেছেন।
কোনটি উপাত্ত সংগ্রহের একটি মৌখিক কৌশল হিসেবে স্বীকৃত?
উত্তর : সাক্ষাৎকার উপাত্ত সংগ্রহের একটি মৌখিক কৌশল হিসেবে স্বীকৃত ।
আক্ষরিক অর্থে সাক্ষাৎকার কী?
উত্তর : আক্ষরিক অর্থে সাক্ষাৎকার হচ্ছে ‘Mutual view of each other’.
R. সাক্ষাৎকারের অপর নাম কী?
উত্তর : সাক্ষাৎকারের অপর নাম হলো উদ্দেশ্যমূলক কথোপকথন ।
১. সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : কোনো বিষয়ে উপাত্ত সংগ্রহের উদ্দেশ্যে দুই বা ততোধিক ব্যক্তির মুখোমুখি অবস্থায় কথোপকথনকে সাক্ষাৎকার বলে ।
পরিকল্পনা (Scientific action plan) বলা হয়ে থাকে ।
সাক্ষাৎকার কী?
উত্তর : সামাজিক গবেষণায় উপাত্ত সংগ্রহের উদ্দেশ্যে মুখোমুখি পরিবেশে দুই বা ততোধিক ব্যক্তির মধ্যকার মিথষ্ক্রিয়াতে কথোপকথনই হলো সাক্ষাৎকার
সাক্ষাত্দানকারীর প্রেষণা কী?
উত্তর : সফল সাক্ষাৎকারের তৃতীয় ও সর্বশেষ অপরিহার্য শর্ত হলো সাক্ষাৎদানকারীর প্রেষণা ‘কৌশলগত প্রেষণা কাকে বলে?
উত্তর : সাক্ষাৎ গ্রহণকারীর সাথে উত্তরদাতার নিজস্ব লক্ষ্য, উদ্দেশ্য, মূল্যবোধ, প্রয়োজন ইত্যাদির মিল বা সামঞ্জস্যের ফলে উভয়ের মধ্যে যে পারস্পরিক প্রেষণার সৃষ্টি হয় তাকে কৌশলগত প্রেষণা বলে ।
সাক্ষাৎকার গ্রহণ প্রক্রিয়ায় সাক্ষাৎ গ্রহণকারী এবং উত্তরদাতার মধ্যে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম কী?
উত্তর : সাক্ষাৎকার গ্রহণ প্রক্রিয়ায় সাক্ষাৎ গ্রহণকারী এবং উত্তরদাতার মধ্যে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে ভাষা।সমাজ গবেষক Pauline V. Young কার্যাবলির ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন?
উত্তর : সমাজ গবেষক Pauline V. Young কার্যাবলির ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে চার ভাগে ভাগ করেছেন।
Pauline V. Young এর প্রদত্ত কার্যাবলির ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারের শ্রেণিবিভাগ লিখ।
উত্তর: Pauline V. Young এর প্রদত্ত কার্যাবলির ভিত্তিতে সাক্ষাৎকার চার প্রকার। যথা : ক. ডায়াগনস্টিক, খ,
বিচারমূলক, গ. গবেষণামূলক এবং ঘ. নমুনা সাক্ষাৎকার ।
Pauline V. Young অংশগ্রহণকারী ব্যক্তির সংখ্যার ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: Pauline V. Young অংশগ্রহণকারী বক্তির সংখ্যার ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে দুই ভাগে ভাগ করেছেন। যথা :
ক. দলগত এবং খ. ব্যক্তিগত বা স্বতন্ত্র।
Pauline V. Young যোগাযোগের ব্যাপ্তির ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: Pauline V. Young যোগাযোগের ব্যাপ্তির ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে দুই ভাগে ভাগ করেছেন। যথা : ক. স্বল্পকালীন এবং খ. দীর্ঘকালীন।
Pauline V. Young প্রক্রিয়াগত প্রকারভেদের ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: Pauline V. Young প্রক্রিয়াগত প্রকারভেদের ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে চার ভাগে ভাগ করেছেন। যথা : ক.
নির্দেশক, খ. অনির্দেশক, গ. কাঠামোগত এবং ঘ. অবকাঠামোগত ।
B.N. Ghosh উদ্দেশ্যের ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: B.N. Ghosh উদ্দেশ্যের ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে দুই ভাগে ভাগ করেছেন। যথা : ক. নিদানিক সাক্ষাৎকার
এবং খ. চিকিৎসামূলক সাক্ষাৎকার ।
B.N. Ghosh বিষয়বস্তুর ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: B.N. Ghosh বিষয়বস্তুর ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে তিন ভাগে ভাগ করেছেন। যথা : ক. গুণবাচক, খ,
পরিমাণবাচক সাক্ষাৎকার এবং গ. চিকিৎসামূলক সাক্ষাৎকার ।
B.N. Ghosh কাঠামোবদ্ধতার ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: B.N.Ghosh কাঠামোবদ্ধতার ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে দুই ভাগে ভাগ করেছেন। যথা : ক. কাঠামোগত
সাক্ষাৎকার এবং খ. অবকাঠামোগত সাক্ষাৎকার ।
B.N. Ghosh সংখ্যার ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: B.N. Ghosh সংখ্যার ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে দুই ভাগে ভাগ করেছেন। যথা: ক. দলগত সাক্ষাৎকার এবং
খ. স্বতন্ত্র বা ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকার ।
B.N. Ghosh যোগাযোগের ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: B.N.Ghosh যোগাযোগের ভিত্তিতে সাক্ষাৎকারকে দুই ভাগে ভাগ করেছেন যথা : ক. স্বল্পকালীন
সাক্ষাৎকার এবং খ. দীর্ঘকালীন সাক্ষাৎকার ।
B.N. Ghosh পদ্ধতিগত দিক থেকে সাক্ষাৎকারকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর: B.N. Ghosh পদ্ধতিগত দিক থেকে সাক্ষাৎকারকে তিনভাগে ভাগ করেছেন। যথা : ক. নির্দেশিত
সাক্ষাৎকার, খ. পুনরাবৃত্তিমূলক সাক্ষাৎকার ।
গুণবাচক সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : মানুষের মনোভাব, চিন্তাধারা, আচরণ, সামাজিক মূল্যবোধ, বিশ্বাস প্রভৃতি গুণগত বৈশিষ্ট্য জানার জন্য যে সাক্ষাৎকার পরিচালিত হয় তাকে গুণবাচক সাক্ষাৎকার বলে।
পরিমাণবাচক সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : যে সাক্ষাৎকারে পরিমাণবাচক বা গণনাযোগ্য উপাত্ত সংগ্রহ করা হয় তাকে পরিমাণবাচক সাক্ষাৎকার বলে।
নিদানিক সাক্ষাৎকার কী ধরনের সাক্ষাৎকার?
উত্তর : নিদানিক সাক্ষাৎকার একটি উদ্দেশ্যভিত্তিক সাক্ষাৎকার ।
চিকিৎসামূলক সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : কোন অস্বাভাবিক আচরণের প্রতিকার করার জন্য যে সাক্ষাৎকার পরিচালিত হয় তাকে চিকিৎসামূলক সাক্ষাৎকার বলে।
নির্বাচনমূলক সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : যে সাক্ষাৎকারে কিছু বিশেষ গুণের ভিত্তিতে ব্যক্তি নির্বাচন করা হয় তাকে নির্বাচনমূলক সাক্ষাৎকার বলে ।
কৌতূহলধর্মী সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : কোন বিষয় বা ঘটনা সম্পর্কে কৌতূহল বা আগ্রহ পরিপূর্ণ করার জন্য যে সাক্ষাৎকার পরিচালিত হয় তাকে কৌতূহলধর্মী সাক্ষাৎকার বলে ।
কাঠামোগত সাক্ষাৎকার কাকে
বলে?
উত্তর : যে সাক্ষাৎকারে প্রয়োজনীয় উপাত্ত সংগ্রহের জন্য গবেষক পূর্বনির্ধারিত সুনির্দিষ্ট
করে উত্তরদাতাকে প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করেন তাকে কাঠামোগত সাক্ষাৎকার বলে।
অবকাঠামোগত সাক্ষাৎকার কাকে
বলে?
উত্তর : পূর্বনির্ধারিত কোন প্রশ্নমালা বা নির্দেশিকা অনুসরণ না করে যে সাক্ষাৎকার পরিচালিত হয় তাকে অবকাঠামোগত সাক্ষাৎকার বলে ডিগ্রি সমাজকর্ম (৫ম পত্র)-২২ অ্যালগি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
স্বল্পকালীনসাক্ষাৎকার কাকে
বলে?
উত্তর : উত্তরদাতার সাথে স্বল্প সময়ের জন্য মিলিত হয়ে একই অধিবেশনে পারস্পরিক আলাপ আলোচনার মাধ্যমে উপাত্ত সংগ্রহের কাজ শেষ হলে তাকে স্বল্পকালীন সাক্ষাৎকার বলে ।
দীর্ঘকালীন সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : সাক্ষাগ্রহণকারী এবং উত্তরদাতার মধ্যে দীর্ঘ সময়ব্যাপী পারস্পরিক যোগাযোগের মাধ্যমে যখন প্রয়োজনীয়
উপাত্ত সংগহ করা হয় তখন তাকে দীর্ঘকালীন সাক্ষাৎকার বলে।
দলীয় সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : যে সাক্ষাৎকারে সাক্ষাৎ গ্রহণকারী গবেষণার বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত একদল লোকের সাথে মিলিত হয়ে প্রয়োজনীয় উপাত্ত সংগ্রহ করেন তাকে দলীয় সাক্ষাৎকার বলে ।ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকার কাকে বলে?
উত্তর : যে সাক্ষাৎকারে সাক্ষাৎ গ্রহণকারী গবেষণার বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত একদল লোকের সাথে মিলিত হয়ে প্রয়োজনীয় উপাত্ত সংগ্রহ করেন তাকে দলীয় সাক্ষাৎকার বলে ।
সাক্ষৎ গ্রহণ প্রক্রিয়ার প্রথম ধাপ কী?
কী
উত্তর : সাক্ষাৎ গ্রহণ প্রক্রিয়ার প্রথম ধাপ হচ্ছে উত্তরদাতাকে তার সুবিধামতো সময় দেয়ার জন্য অনুরোধ করা এবং কোন স্থানে তিনি আলোচনায় বসবেন তাও জানানোর জন্য অনুরোধ করা।
সাক্ষাৎকারের দুটি সুবিধা লিখ।
উত্তর : সাক্ষাৎকারের দুটি সুবিধা হলো : ক. উচ্চহারে উত্তর লাভ এবং খ. অক্ষমদের নিকট থেকে তথ্য সংগ্রহ ।
প্রশ্নমালাকে ডাক প্রশ্নমালা বলা হয় কেন?
উত্তর : ডাকযোগে পাঠানো হয় বলে অনেক সময় প্রশ্নমালাকে ডাক প্রশ্নমালা বলা হয় ।সাধারণভাবে প্রশ্নমালা কাকে বলে?
উত্তর : সাধারণভাবে কোন নির্দিষ্ট বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য বা উপাত্ত সংগ্রহের উদ্দেশ্যে বিষয় সংশ্লিষ্ট এবং বিষয় সম্পর্কিত কতিপয় প্রশ্নের সুবিন্যস্ত লিখিত সমাহারই হলো প্রশ্নমালা ।
দেবেন্দ্র ঠাকুর প্রদত্ত প্রশ্নমালার সংজ্ঞা দাও।
উত্তর : দেবেন্দ্র ঠাকুর বলেছেন, “প্রশ্নমালা হচ্ছে কোন বিশেষ সমস্যার সাথে সম্পর্কযুক্ত জনগণের কাছ থেকে তথ্য পাওয়ার লক্ষ্যে সংগঠিত ও পর্যায়ক্রমিকভাবে তৈরিকৃত কতিপয় প্রশ্নের একটি সেট।
P.V Young প্রশ্নমালাকে কত ভাগে ভাগ করেছেন?
উত্তর : P.V. Young প্রশ্নমালাকে দু’ভাগে ভাগ করেছেন। যথা : ক. কাঠামোগত প্রশ্নমালা এবং খ.অবকাঠামোগত প্রশ্নমালা প্রশ্নমালা অনুসরণ বা ব্যবহার
B.N. Ghosh প্রশ্নের প্রকৃতির উপর ভিত্তি করে প্রশ্নমালাকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ও কী কী?
উত্তর : B.N. Ghosh প্রশ্নের প্রকৃতির উপর ভিত্তি করে প্রশ্নমালাকে চার ভাগে ভাগ করেছেন। যথা : ক. উন্মুক্ত বা
খোলা প্রশ্নমালা, খ. আবদ্ধ প্রশ্নমালা, গ. মিশ্রপ্রশ্নমালা এবং ঘ. মেট্রিক্স প্রশ্নমালা।
কাঠামোগত প্রশ্নমালায় প্রশ্নগুলো কি ভাবে থাকে?
উত্তর : কাঠামোগত প্রশ্নমালায় প্রশ্নগুলো সুনির্দিষ্ট বাস্তব এবং পূর্বনির্ধারিত থাকে ।
কাঠামোগত প্রশ্নমালার বিপরীত অবস্থা কোনটি?
উত্তর : কাঠামোগত প্রশ্নমালার বিপরীত অবস্থা হলো অবকাঠামোগত প্রশ্নমালা ।
অবকাঠামোগত প্রশ্নমালার বিপরীত অবস্থা কোনটি?
উত্তর : অবকাঠামোগত প্রশ্নমালার বিপরতী অবস্থা হলো অবকাঠামোগত প্রশ্নমালা ।
অবকাঠামোগত প্রশ্নমালার প্রধান বৈশিষ্ট্য লিখ।
উত্তর : অবকাঠামোগত প্রশ্নমালার প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো নমনীয়তা ।
উন্মুক্ত প্রশ্নমালা কাকে বলে?
উত্তর : প্রশ্নমালায় ব্যবহৃত প্রশ্নগুলোর সম্ভাব্য উত্তরসমূহ যে প্রশ্নমালায় দেয়া থাকে না কিংবা নির্ধারণ করা থাকে না
কে উন্মুক্ত বা খোলা প্রশ্নমালা বলে ।আবদ্ধ প্রশ্নমালা কাকে বলে?
উত্তর : প্রশ্নমালায় ব্যবহৃত প্রশ্নগুলো সম্ভাব্য উত্তরসমূহ যে প্রশ্নমালায় দেয়া থাকে কিংবা নির্ধারণ করা থাকে তাকে আবদ্ধ প্রশ্নমালা বলে।
আনুষঙ্গিক প্রশ্নমালা কাকে বলে?
উত্তর : মূল প্রশ্নের প্রাসঙ্গিকতায় পরবর্তী প্রশ্নের যে প্রয়োজন দেখা দেয় তাকে আনুষঙ্গিক প্রশ্নমালা বলে ।
মেট্রিক প্রশ্নের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় কী?
উত্তর : মেট্রিক প্রশ্নের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হলো এর ছক ।
মিশ্র প্রশ্নমালা কাকে বলে?
উত্তর : প্রশ্নের নির্ধারিত সম্ভাব্য উত্তর এবং উন্মুক্ত উত্তরসহ যখন প্রশ্নমালা গঠন করা হয় তখন তাকে মিশ্র প্রশ্নমালা বলে ।
সচিত্র প্রশ্নমালা কাকে বলে?
উত্তর : যে প্রশ্নমালায় চিত্রের মাধ্যমে প্রশ্ন উপস্থাপন করা হয়, তাকে সচিত্র প্রশ্নমালা বলে ।
প্রশ্নমালার দুটি অসুবিধা লিখ।
উত্তর : প্রশ্নমালার দুটি অসুবিধা হলো : ক. প্রশ্নমালা কৌশলে নমনীয়তার অভাব রয়েছে এবং খ. এক্ষত্রে আশানুরূপ উত্তর পাওয়া যায় না ।
প্রতিবেদন কী?
উত্তর : যে কোনো বিবরণ অনুসন্ধানের ও ফলাফলের নিয়মতান্ত্রিক বিবৃতি হলো প্রতিবেদন ।
গবেষণার সর্বশেষ ধাপ কোনটি?
উত্তর : গবেষণার সর্বশেষ ধাপটি হলো গবেষণা প্রতিবেদন ।
প্রতিবেদনের যে কোনো দুটি ধরন উল্লেখ কর।
উত্তর : প্রতিবেদনের দুটি ধরন হলো : ক. বিস্তৃত বা দীর্ঘ প্রতিবেদন (যেমন- থিসিস) এবং খ. মাঝারি প্রতিবেদন
(যেমন- গবেষণামূলক প্রবন্ধ) ।
প্রতিবেদন প্রণয়নে দুটি বিবেচ্য বিষয়ের নাম লিখ।
উত্তর : প্রতিবেদন প্রণয়নের দুটি বিবেচ্য বিষয় হলো : ক. সঠিক শিরোনাম এবং খ. সুষ্ঠু পরিকল্পনা ।
একটি ভালো প্রতিবেদনের দুটি বৈশিষ্ট্য উল্লেখ কর।
উত্তর : একটি ভালো প্রতিবেদনের দুটি বৈশিষ্ট্য হলো : ক. প্রত্যয়ের সুস্পষ্ট ও কার্যকরী সংজ্ঞা প্রদান এবং খ. সহজ, সরল ও প্রাঞ্জল ভাষায় উপস্থাপন ।
গবেষণা প্রস্তাবনার প্রথম বিষয় কী?
উত্তর : গবেষণা প্রস্তাবনার প্রথম বিষয় হলো গবেষণার বিষয়বস্তু নির্ধারণ করা ।
একটি আদর্শ গবেষণা প্রস্তাবনার দুটি উপাদানের নাম লিখ।
উত্তর : একটি আদর্শ গবেষণা প্রস্তাবনার দুটি উপাদান হলো : ক. প্রাসঙ্গিক সাহিত্য পর্যালোচনা এবং খ. পূর্বানুমান গঠন।
উপাত্তের উৎস কয়টি ও কী কী?
উত্তর : উপাত্তের উৎস দুটি। যথা : ক. প্রাথমিক উৎস এবং খ. মাধ্যমিক উৎস।
কাকে গবেষণা প্রতিবেদন প্রণয়নের পথনির্দেশিকা (Guide line) বলা হয়?
উত্তর : গবেষণা প্রস্তাবনাকে গবেষণা প্রতিবেদন প্রণয়নের পথনির্দেশিকা বলা হয়।
সামাজিক সমস্যা শনাক্তকরণে প্রথম বিবেচ্য বিষয় কোনটি?
উত্তর : সামাজিক সমস্যা শনাক্তকরণে প্রথম বিবেচ্য বিষয় হলো তাত্ত্বিক বা প্রায়োগিক দিক থেকে সমস্যাটি কোনো তাৎপর্য বহন করে কিনা।

খ-বিভাগ

প্রশ্ন।০১। সামাজিক সমস্যা শনাক্তকরণে বিবেচ্য বিষয়গুলো লিখ।
প্রশ্ন।০২।সাহিত্য পর্যালোচনা কী?

প্রশ্ন।০৩।সাহিত্য পর্যালোচনার উদ্দেশ্য কী কী?
প্রশ্ন।০৪।প্রাসঙ্গিক সাহিত্য পর্যালোচনার গুরুত্ব লিখ।
প্রশ্ন।০৫। গবেষণা নকশার সংজ্ঞা দাও।
প্রশ্ন।০৬। গবেষণা নকশার প্রকারভেদ উল্লেখ কর।
প্রশ্ন॥০৭॥ গবেষণা নকশা প্রণয়নে বিবেচ্য বিষয়গুলো লিখ।
প্রশ্ন।০৮। গবেষণা নকশার ধাপগুলো লিখ।
প্রশ্ন।০৯] একটি উত্তম গবেষণা নকশার বৈশিষ্ট্য লিখ।
প্রশ্ন।১০।গবেষণা নকশার উদ্দেশ্য উল্লেখ কর।
প্রশ্ন॥১১৷ সামাজিক গবেষণায় গবেষণা নকশার গুরুত্ব লিখ।
প্রশ্ন॥১২৷ সামাজিক গবেষণায় নকশার উপাদানগুলো সংক্ষেপে আলোচনা কর ।
প্রশ্ন।১৩। সামাজিক গবেষণায় পর্যবেক্ষণের সংজ্ঞা দাও।
প্রশ্ন ১৪।পর্যবেক্ষণ পদ্ধতির শ্রেণিবিভাগ উল্লেখ কর।
প্রশ্ন॥১৫।পর্যবেক্ষণ এর বৈশিষ্ট্যগুলো লিখ।
প্রশ্ন॥১৬॥ সামাজিক গবেষণায় পর্যবেক্ষণের সুবিধাসমূহ আলোচনা কর ।
প্রশ্ন॥১৭ সামাজিক গবেষণায় পর্যবেক্ষণের অসুবিধাসমূহ আলোচনা কর ।
প্রশ্ন ১৮। প্রশ্নমালা বলতে কী বুঝ?
প্রশ্ন।১৯। প্রশ্নমালার প্রকারভেদ সংক্ষেপে উল্লেখ কর।
প্রশ্ন ২০॥তথ্যসংগ্রহে প্রশ্নমালার গুরুত্ব উল্লেখ কর।
প্রশ্ন।২১।প্রশ্নমালা প্রণয়নের উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা কর ।
প্রশ্ন।২২।খোলা প্রশ্নপত্রের সুবিধা ও অসুবিধা উল্লেখ কর।
প্রশ্ন।২৩।আবদ্ধ প্রশ্নপত্রের সুবিধা ও অসুবিধা উল্লেখ কর।
প্রশ্ন॥২৪॥ প্রশ্নমালার সুবিধাসমূহ সংক্ষেপে বর্ণনা কর ।
প্রশ্ন॥২৫। প্রশ্নমালার অসুবিধাসমূহ সংক্ষেপে বর্ণনা কর ।
প্রশ্ন॥২৬। সংক্ষেপে উত্তম প্রশ্নমালার বৈশিষ্ট্য লিখ।
প্রশ্ন॥২৭৷ সাক্ষাৎকার কী?
প্রশ্ন॥২৮॥ সফল সাক্ষাৎকারের প্রয়োজনীয় শর্তাবলি লিখ
প্রশ্ন।২৯। উত্তম সাক্ষাৎকার গ্রহণকারীর গুণাবলি আলোচনা কর ।
প্রশ্ন ৩০॥ সাক্ষাৎকারের প্রকারভেদ লিখ ।
প্রশ্ন ॥৩২। সংক্ষেপে সাক্ষাগ্রহণ প্রক্রিয়া আলোচনা কর ।
প্রশ্ন ৩৩॥ সাক্ষাৎকার পদ্ধতির সুবিধাসমূহ লিখ।
প্রশ্ন॥৩৪। সাক্ষাৎকার পদ্ধতির অসুবিধাসমূহ লিখ।
প্রশ্ন॥৩৫।সাক্ষাৎকার পদ্ধতির ধাপসমূহ লিখ ।
প্রশ্ন।৩৬।প্রশ্নপত্র ও সাক্ষাৎকার অনুসূচির মধ্যে পার্থক্য লিখ ।
প্রশ্ন।৩৭।ডক্যুমেন্টারি স্টাডি কী?
প্রশ্ন৷৩৮৷ ডক্যুমেন্টারি স্টাডির সুবিধাগুলো লিখ।
প্রশ্ন॥৩৯৷ ডক্যুমেন্টারি স্টাডির অসুবিধাগুলো লিখ ।
প্ৰশ্ন৷৪০৷ উপাত্ত প্রক্রিয়াজাতকরণ কী?
প্ৰশ্ন৷৪১৷ উপাত্ত প্রক্রিয়াজাতকরণের ধাপসমূহ লিখ
প্রশ্ন৷৪২৷৷ প্রতিবেদন লিখন কী?
প্রশ্ন ১৪ প্রতিবেদন প্রণয়নে বিবেচ্য বিষয়গুলো কী কী?
প্রশ্ন৷৪৪।সংক্ষেপে একটি ভালো প্রতিবেদনের বৈশিষ্ট্যগুলো লিখী। ক্ষও
প্রশ্ন॥৪৫৷ একটি ভালো প্রতিবেদন লেখার প্রয়োজনীয় নির্দেশনাবলি
প্রশ্ন॥৪৬॥ গবেষণা প্রতিবেদন বলতে কী বুঝ?
প্রশ্ন৷৪৭৷ পরীক্ষণ পদ্ধতির সুবিধা লিখ
প্রশ্ন৷৪৮৷৷ তথ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ কী?
প্রশ্ন৷৪৯। পরীক্ষণ পদ্ধতির বৈশিষ্ট্যগুলো লিখ ।
প্রশ্ন॥৫০ পর্যবেক্ষণ বলতে কী বুঝ?
প্রশ্ন৷৫১৷ পরীক্ষণ পদ্ধতির সংজ্ঞা দাও ।
উল্লেখ কর।
প্রশ্ন।৫২।সামাজিক গবেষণায় বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি প্রয়োগের চারটি ধাপ লিখ
প্রশ্ন ৫৩৷ বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির উপাদানসমূহ কী কী?
প্রশ্ন৫৪। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক উপাত্তের মধ্যে পার্থক্য কী কী?
প্রশ্ন॥৫৫ ফোকাস দলের সংজ্ঞা দাও ।
প্রশ্ন॥৫৬॥ –কেস স্টাডি ও ফোকাস গ্রুপের সংজ্ঞা দাও না
প্রশ্ন।৫৭।কেস স্টাডি পদ্ধতির ধাপসমূহ কী কী?
প্রশ্না।৫৮।গুণবাচক ও পরিমাণ বাচক উপাত্ত বলতে কী বুঝ?
প্রশ্ন৷৫৯৷ ডাক প্রশ্নমালা ও অনুসূচির মধ্যে পার্থক্য লিখ ।

গ-বিভাগ

প্রশ্নঃ০১।গবেষণা নকশা বলতে কী বুঝ? গবেষণা নকশা প্রণয়নে বিবেচ্য বিষয়গুলো লিখ ।
প্রশ্নঃ০২।গবেষণা নকশার সংজ্ঞা দাও । একটি উত্তম গবেষণা নকশার বৈশিষ্ট্য লিখ।
প্রশ্নঃ০৩। গবেষণা নকশার উদ্দেশ্য ও গুরুত্ব উল্লেখ কর।
প্রশ্ন।০৪। গবেষণা নকশার উপাদানগুলো আলোচনা কর ।
প্রশ্ন।০৫। গবেষণা নকশার প্রকারভেদ আলোচনা কর।
প্রশ্নঃ০৬।গবেষণা নকশার ধাপগুলো আলোচনা কর ।।
প্রশ্ন।০৭। তোমার সমাজের যে কোন একটি সমস্যার উপর একটি গবেষণা নকশা তৈরি কর।
প্রশ্ন ॥০৮ ॥গবেষণা নকশার উদ্দেশ্য ও বৈশিষ্ট্য আলোচনা কর ।
প্রশ্ন ॥০৯।পরীক্ষণ নকশার প্রকারভেদ উল্লেখপূর্বক পরীক্ষণ গবেষণার শ্রেণিবিভাগ ব্যাখ্যা কর।
প্রশ্নঃ১০॥তোমার ইচ্ছানুযায়ী যে কোনো একটি বিষয়ের উপর গবেষণা নকশা তৈরি কর।
প্রশ্ন॥১১৷ সমাজ অনুসন্ধানের বিভিন্ন পদ্ধতিগত নকশা আলোচনা কর।
প্রশ্ন।১২।সামাজিক গবেষণায় পর্যবেক্ষণের সংজ্ঞা দাও। এর বৈশিষ্ট্যগুলো লিখ।
প্রশ্ন॥১৩।পর্যবেক্ষণ পদ্ধতি বলতে কী বুঝায়? পর্যবেক্ষণের শ্রেণিবিভাগ আলোচনা কর ।
প্রশ্ন॥১৪।পর্যবেক্ষণের সুবিধা ও অসুবিধাসমূহ লিখ।
প্রশ্ন॥১৫। প্রশ্নমালা পদ্ধতি বলতে কী বুঝ? প্রশ্নমালার প্রকারভেদ সংক্ষেপে আলোচনা কর।
প্রশ্ন॥১৬॥ উত্তম প্রশ্নমালার বৈশিষ্ট্য বর্ণনা কর।
প্রশ্ন ১৭।তথ্য সংগ্রহে প্রশ্নমালার গুরুত্ব কী? এ প্রসঙ্গে প্রশ্নমালা প্রণয়নের নীতিমালা ব্যাখ্যা কর ।
প্রশ্ন।১৮।প্রশ্নমালা প্রণয়নের পদক্ষেপসমূহ বর্ণনা কর। প্রশ্নমালা প্রণয়নের ক্ষেত্রে যেসব সমস্যার উদ্ভব হতে পারে তার তালিকা প্রণয়ন কর।
প্রশ্ন৷১৯। একটি উত্তম প্রশ্নমালা তৈরি করতে কী কী বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত? আলোচনা কর ।
প্রশ্ন ২০। সাক্ষাৎকার পদ্ধতি বলতে কী বুঝ? সাক্ষাগ্রহণকারীর গুণাবলি আলোচনা কর ।
প্রশ্ন। ২১।সাক্ষাৎকারের সংজ্ঞা দাও। সফল সাক্ষাৎকারের প্রয়োজনীয় শর্তাবলি লিখ।
প্রশ্ন।২২।সাক্ষাৎকারের সুবিধা ও সীমাবদ্ধতা আলোচনা কর ।
প্রশ্ন।২৩। ডাক প্রশ্নমালা এবং অনুসূচির মধ্যে পার্থক্য লিখ।
প্রশ্ন৷২৪। প্রতিবেদন লিখন কী? প্রতিবেদন প্রণয়নে বিবেচ্য বিষয়গুলো কী কী? বর্ণনা কর ।
প্রশ্ন ২৫। প্রতিবেদন কাঠামো উল্লেখ কর ।
প্রশ্ন।২৬। একটি ভালো প্রতিবেদনের বৈশিষ্ট্য উল্লেখ কর।
প্রশ্ন৷২৭৷ ডক্যুমেন্ট স্টাডি সম্পর্কে যা জান আলোচনা কর ।
প্রশ্ন।২৮। তথ্য প্রক্রিয়াজাতকরণের বিভিন্ন স্তরগুলো আলোচনা কর ।
প্রশ্ন৷২৯। সাহিত্য পর্যালোচনা কী? সামাজিক গবেষণায় সাহিত্য পর্যালোচনার গুরুত্ব আলোচনা কর।
প্রশ্ন।৩০। সাহিত্য পর্যালোচনার প্রাসঙ্গিক বিষয়গুলো বিশ্লেষণ কর।
প্রশ্ন ৩১৷ সাহিত্য সমীক্ষা কাকে বলে? সামাজিক গবেষণায় সাহিত্য সমীক্ষার গুরুত্ব আলোচনা কর।
প্রশ্নঃ৩২। একটি গবেষণা প্রতিবেদন লেখার প্রয়োজনীয় নির্দেশাবলি আলোচনা কর।
প্রশ্ন৷৩৩। অংশ গ্রহণমূলক পর্যবেক্ষণ বলতে কী বুঝ? অংশগ্রহণমূলক পর্যবেক্ষণের সাহায্যে কিভাবে তথ্যসংগ্রহ করা হয়? আলোচনা কর।
প্রশ্ন৷৩৪৷ পরিমিত ব্যবধান কাকে বলে? পরিমিত ব্যবধানের ব্যবহার সুবিধা ও অসুবিধা আলোচনা কর ।
প্রশ্ন৷৩৫। গাণিতিক গড়ের বৈশিষ্ট্যাবলি আলোচনা কর । গাণিতিক গড় নির্ণয়ের পদ্ধতি বা সূত্রগুলো আলোচনা কর।
প্রশ্ন ৩৬। প্রতিবেদনের ধাপসমূহ আলোচনা কর ।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন:+8801979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!