অথবা, আল কিন্দির চিন্তায় গ্রিক দর্শনের কোন কোন বিষয় প্রভাব বিস্তার করেছে বলে
তুমি মনে কর?
অথবা, আল কিন্দির দর্শনের কোন কোন ক্ষেত্রে গ্রিক দর্শনের প্রভাব পরিলক্ষিত হয়?
অথবা, আল কিন্দির দর্শনে কোন কোন দিক থেকে গ্রিক দর্শনের প্রভাব পরিলক্ষিত হয়
সংক্ষেপে ব্যাখ্যা কর।
অথবা, আল কিন্দির চিন্তায় গ্রিক দর্শনের প্রভাব সংক্ষেপে তুলে ধর।
উত্তর৷ ভূমিকা :
আল কিন্দি মুসলিম ফালাসিফা দার্শনিক সম্প্রদায়ের অন্যতম একজন দার্শনিক। ইসলাম ধর্মের আওতায় থেকে গ্রিক দর্শনের বুদ্ধিবাদী ঐতিহ্যকে দক্ষতার সাথে তিনি মুসলিম দর্শনে প্রয়োগ করেছেন। দর্শন ও বিজ্ঞান চর্চায় তিনি আরবীয় মুসলমানদের মধ্যে প্রথম হওয়ায় আরব দার্শনিক বলে পরিচিতি লাভ করেন। অনেকে মনে করেন, আল কিন্দির মতবাদসমূহ গ্রিক চিন্তা দ্বারা প্রভাবিত।
আল কিন্দির দর্শনে গ্রিক প্রভাব : আল কিন্দি গ্রিক রচনার সংস্পর্শে আসার কারণে তাঁর চিন্তাভাবনায় গ্রিক দর্শন চিন্তা প্রভাব বিস্তার করে। পি. কে. হিট্টি বলেন, “আল কিন্দি ছিলেন সারগ্রাহী যিনি প্লেটো ও এরিস্টটলের মতবাদের সমন্বয়সাধনের চেষ্টা করেছিলেন। আল কিন্দির দর্শনে নিম্নোক্ত গ্রিক দর্শনের বিষয়বস্তু প্রভাব বিস্তার করেছে :
ক. নির্গমন মতবাদ : জগৎ সৃষ্টি সম্পর্কে আল কিন্দি নির্গমন মতবাদের প্রবর্তন করেন। এ মদতবাদে তার উপর গ্রিক প্রভাব সুস্পষ্ট। তাঁর মতে, জগৎ আল্লাহ হতে বিনির্গত হয়, এটি হয় অসচেতনভাবে। যেমন- সূর্য থেকে সূর্য রশ্মি বিনির্গত হয়। এ মতবাদে প্লটিনাসের প্রভাব রয়েছে।
খ. বুদ্ধি সম্পৰ্কীয় মতবাদ : বুদ্ধি সম্পর্কিত মতবাদে তিনি এরিস্টটলকে অনুসরণ করেন। আল কিন্দি এরিস্টটলের সুপ্ত বুদ্ধি ও সক্রিয় বুদ্ধির অনুসরণে বুদ্ধিকে চার ভাগে ভাগ করেন এবং স্বতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেন। এ চার প্রকার বুদ্ধি হলো সুপ্ত বা সম্ভাব্য বুদ্ধি, সক্রিয় বুদ্ধি, অর্জিত বুদ্ধি ও চালক বুদ্ধি। তাই আল কিন্দির মতবাদকে এরিস্টটলের মতবাদের
অগ্রগতির পরবর্তী পর্যায় বলা হয়।
গ. বস্তু সম্পৰ্কীয় মতবাদ : অনেকে মনে করেন যে, আল কিন্দি এরিস্টটলের পদার্থবিদ্যা হতে তাঁর “Five Essence theory” গ্রহণ করেছেন। তিনি নব্য প্লেটোবাদীদের আদলে এরিস্টটলকে গ্রহণ করেন। তিনি দার্শনিক চিন্তার সাথে ধর্মের সমন্বয়সাধন করতে গ্রিক দর্শনের বিভিন্ন তত্ত্বকে সম্প্রসারিত করেন।
ঘ. আল্লাহ ও জগতের সম্পর্ক বিষয়ক মতবাদ : আল কিন্দি, বলেন, “এ জগৎ আল্লাহ হতে বিনির্গত হয়েছে।” ‘তাই স্বর্গীয় সত্তা বিশ্ব জগতের কারণ। বস্তু বা জড় আত্মা এবং পরমাত্মার মধ্যবর্তী অবস্থানে রয়েছে বিশ্ব আত্মা। তার এ পরমাত্মা বা বিশ্বাত্মার ধারণার সাথে এরিস্টটলের চূড়ান্ত কারণ বা অসঞ্চালিত সঞ্চালকের মিল রয়েছে।
উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনার আলোকে আমরা বলতে পারি, আল কিন্দি শুধুমাত্র এরিস্টটলীয় দর্শনের টাকা ভাষ্য রচনাকারী নন, বরং গ্রিক দর্শনের অনেক বিষয়কে তিনি আরো অধিক সম্প্রসারিত করে স্বতন্ত্রতা অর্জন করেছেন। তাঁর দর্শনে একদিকে রয়েছে গ্রিক দর্শনের প্রভাব অপরদিকে রয়েছে ধর্মতত্ত্বের সাথে সমন্বয়সাধনের প্রচেষ্টা। আর
এভাবেই তিনি দর্শনচর্চা করে মুসলিম দর্শনকে সমৃদ্ধ করেছেন।

https://topsuggestionbd.com/%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a5%e0%a6%ae-%e0%a6%85%e0%a6%a7%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%af%e0%a6%bc-%e0%a6%86%e0%a6%b2-%e0%a6%95%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a6%e0%a6%bf/
admin

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!