অথবা, ইকবাল কে?
অথবা, ইকবালের সম্পর্কে যা জান সংক্ষেপে লেখ।
অথবা, ইকবালের পরিচয় সংক্ষেপে উল্লেখ কর।
অথবা, মুসলিম দর্শনে ইকবাল কে ছিলেন?
উত্তর৷ ভূমিকা : মুসলিম দর্শনের ইতিহাসে আল্লামা ইকবাল বিশিষ্ট স্থানের অধিকারী। উপমহাদেশে মুসলিম চিন্তাধারার ক্ষেত্রে তিনি আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন। তিনি একজন কবি ও দার্শনিক। তিনি মুসলিম দর্শনে প্রাচ্যের
অধ্যাত্মবাদ ও পাশ্চাত্যের বস্তুবাদের মধ্যে সমন্বয়সাধন করেন। তিনি চিন্তা ও কর্মের মাধ্যমে ভারতীয় উপমহাদেশের মুসলিম জাতিকে নবজাগরণের পথ দেখিয়ে গেছেন।
পরিচয় : আল্লামা ইকবাল ১৮৭৩ খ্রিস্টাব্দের ২২ ফেব্রুয়ারি বর্তমান পাকিস্তানের পাঞ্জাবের শিয়ালকোটে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পুরো নাম আল্লামা মোহাম্মদ ইকবাল। তাঁর পূর্বপুরুষগণ ছিলেন কাশ্মীরি ব্রাহ্মণ। তাঁর পিতার নাম নূর
মুহাম্মদ। তিনি একজন সুফি ছিলেন।.আল্লামা ইকবাল শৈশবে জন্মস্থানে প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন। এ সময় তিনি মীর হাসান নামক এক বিশিষ্ট ইসলামি পণ্ডিতের অনুপ্রেরণায় ইসলামি সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ে অধ্যয়ন করেন। প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে তিনি উচ্চতর শিক্ষা লাভের জন্য লাহোর গমন করেন এবং বিখ্যাত পণ্ডিত টমাস আর্নল্ডের সাহচর্য লাভ করেন। আর্নল্ড ইকবালকে
পাশ্চাত্য জ্ঞানবিজ্ঞান ও দর্শনের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। এরপর তিনি ইংল্যান্ড গমন করেন। ১৯০৫ সালে ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় হতে এম. এ এবং জার্মানির মিউনিখ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। এরপর দেশে ফিরে তিনি ১৯০৮ সালে লাহোর সরকারি কলেজ অধ্যাপনা শুরু করেন। কিন্তু তিনি বেশিদিন অধ্যাপনা করেন নি। অধ্যাপনা ছেড়ে তিনি কাব্যচর্চায় আত্মনিয়োগ করেন। তিনি অনেক কাব্যগ্রন্থ ও দার্শনিক গ্রন্থ রচনা করেন। তাঁর রচিত বিখ্যাত গ্রন্থ হলো আসরারে খুদী (১৯২৫), রুমুজ-ই বিখুদী (১৯২৭), পয়াম-ই-মাশরিক (১৯২৩), জবর-ই- আযম (১৯২৭),.জাবিদনামা প্রভৃতি। এছাড়া তাঁর দুটি বিখ্যাত গ্রন্থ হলো, “The Development of Metaphysics in Persia” এবং “Reconstruction of Religious Thought in Islam”। ১৯৩৮ সালে লাহোরে এ মহান চিন্তানায়ক শেষ নিঃশ্বাস.ত্যাগ করেন।
উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনার আলোকে আমরা বলতে পারি যে উপমহাদেশের সাহিত্য ও দর্শনচিন্তায় আল্লামা ইকবাল এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তাঁর রচনায় এক দিকে রয়েছে সাহিত্য বা কাব্যগুণ অপরদিকে রয়েছে দার্শনিক তত্ত্ব। তিনি.‘খুদিতত্ত্ব’ প্রচার করে সর্বাধিক খ্যাতি অর্জন করেন। তাঁর সমগ্র রচনা এ খুদিত্ত্বকে কেন্দ্র করে আবর্তিত। তিনি মুসলিম দর্শনকে চিন্তা ও কর্ম দ্বারা সমৃদ্ধি দান করেছেন।

https://topsuggestionbd.com/%e0%a6%b7%e0%a6%b7%e0%a7%8d%e0%a6%a0-%e0%a6%85%e0%a6%a7%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%af%e0%a6%bc-%e0%a6%86%e0%a6%b2%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a6%be-%e0%a6%87%e0%a6%95%e0%a6%ac/
admin

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!